বিতর্কিত ই-কমার্সে নগদের প্রশ্নবিদ্ধ লেনদেন!

নিউজনাউ ডেস্ক: অতি সম্প্রতি ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’-এর মাধ্যমে
বিতর্কিত বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে সন্দেহজনক লেনদেন বেড়েছে। সন্দেহজনক হিসাবগুলোর লেনদেন সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে নগদ। এছাড়া বেশকিছু অ্যাকাউন্টের তথ্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) ‘নগদ’-এর পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। এ বিষয়ে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে বলে জানায় নগদ।

‘নগদ’ এর পক্ষ থেকে সন্দেহজনক ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম উল্লেখ না করা হলেও বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, ইভ্যালি, আলেশা মার্ট, ই-অরেঞ্জ, ধামাকা শপিং, সিরাজগঞ্জ শপিং, আলাদিনের প্রদীপ, বুম বুম, কিউকম, আদিয়ান মার্ট ও নিডস ডট কম বিডির বিরুদ্ধে। এর মধ্যে ই-অরেঞ্জের ব্যাংক লেনদেন স্থগিত রয়েছে। এছাড়া ইভ্যালি, ই-অরেঞ্জ, আলেশা মার্টসহ ১০টি ডিজিটাল কমার্স প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে অধিকাংশ ব্যাংক তা‌দের ক্রেডিট, ডেবিট ও প্রি-পেইড কার্ডের লেনদেন বন্ধ রেখেছে। তাই এখন তারা মোবাইলের মাধ্যমে আর্থিক সেবায় (এমএফএস) লেনদেন করছে।

‘নগদ’ জানায়, গত কয়েকদিনে কিছু সংখ্যক ‘নগদ’ গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে হঠাৎ করে বিতর্কিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোতে অস্বাভাবিক লেনদেন পরিলক্ষিত হচ্ছিল। এরই পরিপ্রেক্ষিতে অধিক পর্যালোচনা ও লেনদেনের ধরণ পরীক্ষা করে কিছু অ্যাকাউন্ট সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে।

একই সঙ্গে অ্যাকাউন্টগুলোর তালিকা বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ), বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এবং র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-এর কাছে হস্তান্তর করেছে ‘নগদ’।

নিউজনাউ/আরবি/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: