বঙ্গভ্যাক্সের অ্যানিমেল ট্রায়াল শুরু

নিউজনাউ ডেস্ক: করোনা সংক্রমন রোধে বাংলাদেশি গ্লোব বায়োটেকের তৈরি বঙ্গভ্যাক্স টিকার অ্যানিমেল (বানরের ওপর) ট্রায়াল গত ১ আগস্ট থেকে শুরু হয়েছে। অক্টোবরের মাসের শেষের দিকে ট্রায়ালের বিস্তারিত প্রতিবেদন বাংলাদেশ চিকিৎসা গবেষণা পরিষদের (বিএমআরসি) কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এসব বিষয় নিশ্চিত করেছেন গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের কোয়ালিটি অ্যান্ড রেগুলেটরি বিভাগের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক ড. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

তিনি বলেন, গত ১ আগস্ট থেকে বানরের ওপর ট্রায়াল শুরু হয়েছে। আগামী মাসের মাঝামাঝি এ ট্রায়াল শেষ হবে। আগামী মাসের (অক্টোবর) মধ্যেই বিএমআরসিকে রিপোর্ট জমা দিতে পারবো বলে আশা করছি

ট্রায়াল প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথম বানরের ওপর ট্রায়াল হচ্ছে, যা নিঃসন্দেহে দেশের বিজ্ঞান গবেষণায় এক নতুন মাইলফলক। প্রাথমিক ফলাফলে ওই টিকাটি বানরে নিরাপদ বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।

বঙ্গভ্যাক্সের কার্যকারিতা প্রসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, প্রাণঘাতী ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টসহ করোনার প্রায় প্রতিটি ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধেই বঙ্গভ্যাক্স কার্যকরি।

করোনা মহামারির বিরুদ্ধে সারা বিশ্বেই অধিক কার্যকরী টিকা হবে বঙ্গভ্যাক্স, এমনটি জানিয়ে গ্লোব বায়োটেক জানায়, আমরা আমাদের গবেষণাগারে করোনাভাইরাসের সম্পূর্ণ জিনোম সিকুয়েন্স করেছি। এছাড়াও এনসিবিআই ভাইরাস ডেটাবেজে প্রাপ্ত দেশীয় ও আন্তর্জাতিক কোভিড-১৯ এর সব সিকুয়েন্স বায়োইনফরমেটিক্স টুলসের মাধ্যমে বিশদ পর্যালোচনা করে আমাদের টিকার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছি এবং ওই টিকা সারা বিশ্বে অধিক কার্যকরী হবে বলে যৌক্তিকভাবে আশা করছি।

বঙ্গভ্যাক্স টিকার বিশেষ বৈশিষ্ট্য প্রসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক ড. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, আমাদের টিকাটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এর ১টি ডোজেই অ্যানিম্যাল ট্রায়ালে কার্যকর এন্টিবডি পাওয়া গেছে। আমরা আশা করছি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালেও অনুরূপ ফলাফল পাওয়া যাবে। এটি +৪° সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ১ মাস এবং -২০° সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ৬ মাস পর্যন্ত সংরক্ষণ করা যাবে। এটি সিন্থেটিক্যালি তৈরি হওয়ায় তা ভাইরাসমুক্ত এবং শতভাগ হালাল।

‘আমরা যদি দ্রুততম সময়ে টিকাটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শেষ করে মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে দেশবাসীর সেবায় বঙ্গভ্যাক্সকে উৎসর্গ করে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্ব-দরবারে আরও সুপ্রতিষ্ঠিত হবে’, যোগ করেন তিনি।

বঙ্গভ্যাক্সের অ্যানিমেল ট্রায়াল ও অনুমোদন প্রসঙ্গে বিএমআরসি বলছে, অ্যানিমেল ট্রায়ালে টিকাটি ঝুঁকিমুক্ত প্রমাণ হলেই মানবদেহে ট্রায়ালের অনুমতি দেওয়া হবে।

এর আগে গত বছরের ২ জুলাই ওষুধ প্রস্তুতকারী গ্লোব ফার্মার সহযোগী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক ‘বঙ্গভ্যাক্স’ টিকা তৈরির কাজ শুরুর কথা জানায়। এরই মধ্যে সেই টিকা খরগোশ ও ইঁদুরের ওপর প্রয়োগ করে ‘কার্যকর ও সম্পূর্ণ নিরাপদ’ প্রমাণিত হয়েছে বলে জানানো হয়।

নিউজনাউ/আরবি/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: