স্বামীর অত্যাচারে নববধুর আত্মহত্যা

পটুয়াখালী প্রতিনিধি: কলাপাড়ার কুয়াকাটায় স্বামীর অত্যাচার সইতে না পেরে সাথী আক্তার (১৭) নামের এক নববধুর আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে কুয়াকাটা পৌর শহরের পাঞ্জুপাড়া এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে ওই নববধুর গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় স্বামী জাহিদুল ইসলাম (২৭) কে জিজ্ঞাসাবাদরে জন্য আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দা সুমন কর্মকারের বাড়িতে গত একমাস আগে ভাড়ায় ওঠেন মৃত সাথী ও তার স্বামী জাহিদ। মৃত সাথী আক্তার উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের ছইলা বুনিয়া গ্রামের হারুন সরদারের মেয়ে। সে এ বছর এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।

বাসার মালিক সুমন কর্মকার জানান, গত একমাস আগে তার বাড়িতে একটি রুমে ভাড়ায় ওঠে জাহিদ সাথী দম্পতি। রাতে বাড়ি থেকে তার বোনের ফোনে জানতে পারে সাথীর রুমের দরজা ভিতর থেকে লাগানো। জানালা দিয়ে তাকে ফ্যানের আংটার ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যাচ্ছে। পরবর্তীতে মহিপুর থানায় ফোন করলে পুলিশ এসে দরজা ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করে।

মৃতের পিতা হারুন সরদার জানান, প্রায় দুই মাস আগে সাথী তার পরিবারের কাউকে না জানিয়ে পটুয়াখালীর জাহিদুলকে বিয়ে করেন। তিনি আরো জানান, আমার তিন সন্তানের মধ্যে সাথী সবার বড়, একটি মাত্র মেয়ে আমার। তারা কুয়াকাটায় ভাড়া বাসায় থাকতো। বিয়ের পর থেকেই জাহিদুল তাকে বিনা কারনে অত্যাচার করতো। মারা যাওয়ার আগে সাথী তার ডায়রীতে স্বামীর অত্যাচারের কাহিনী লিখে গেছে। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান।

মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হইবে। তিনি আরও জানান, আত্মহত্যার পূর্বে ভিকটিম একটি সুইসাইড নোট লিখে যায়। আমরা তদন্তের স্বার্থে আপাতত নোটটিতে লিখিত বক্তব্য প্রকাশ করছি না।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: