প্রতিটি ওয়ার্ডকে ১০টি ইউনিটে বিভক্ত করে চলছে মশক নিধন

নিউজনাউ ডেস্ক: ঢাকার প্রতিটি ওয়ার্ডকে ১০টি ক্ষুদ্র ইউনিটে বিভক্ত করে মশক নিধন কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

আজ শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তরে জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক চুন্নুর প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপিত হয়।

এ সময় মন্ত্রী জানান, মশক নিধনে দৈনিকভিত্তিতে ৩ হাজার জনবল নিয়োগ দেয়া হয়েছে। গুণগত-মানসম্পন্ন কীটনাশক নির্বাচন ও অন্যান্য যন্ত্রপাতির সংস্থান নিশ্চিত করা হয়েছে। ডেঙ্গুসহ মশাবাহী রোগ প্রতিরোধে আন্তঃমন্ত্রণালয়সহ সব পর্যায়ে সভা করা হয়েছে। মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে জাতীয় নির্দেশিকা ছাপানো হয়েছে।

তিনি আরও জানান, সকালে লার্ভিসাইড এবং বিকেলে এডাস্টিসাইড প্রয়োগ করা হচ্ছে। মশক নিধনে সেল গঠন করা হয়েছে। সরকারি আবাসিক ও অনাবাসিক ভবন এবং অন্যান্য দপ্তরে এবং নগরীর উন্মুক্ত স্থানে স্ব স্ব উদ্যোগে পরিষ্কার-পরিচ্ছনতা নিশ্চিত করা হচ্ছে।

বেতার, টেলিভিশন ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সচেতনতামূলক বিজ্ঞাপন প্রচার করা হচ্ছে। জনগণকে সচেতন করা হচ্ছে। মশকের প্রজননে উৎসাহিতকারী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

 

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: