তালেবান আফগান নারীদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে: জাতিসংঘ

নিউজনাউ ডেস্ক: আফগানিস্তান দখলের পর তালেবান মুখপাত্র জানিয়েছিলেন, মানবাধিকারের বিষয়টি খেয়াল রাখা হবে। শরিয়া আইন মেনে নারীদের অধিকার রক্ষা করা হবে। সহিংস শাস্তি দেওয়া হবে না। এতদিন যারা বিদেশি সংস্থার সঙ্গে কাজ করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না।

কিন্তু বাস্তব পরিস্থিতি তেমন নয় বলে জরুরি রিপোর্ট দাবি করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান মিশেল ব্যাশেলেট। মঙ্গলবার তিনি জানিয়েছেন, আফগানিস্তান থেকে ভয়াবহ তথ্য এসে পৌঁছেছে জাতিসংঘের কাছে।

মিশেল জানিয়েছেন, তালেবান ক্ষমতা দখলের পর নারীদের বাড়ি থেকে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না। মেয়ে শিক্ষার্থীদের স্কুলে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। বিদেশি সংস্থায় কাজ করা আফগানদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। তাদের মারধর করা হচ্ছে। আফগান সেনাবাহিনীতে কাজ করা ব্যক্তিদের রাস্তায় প্রকাশ্যে হত্যা করা হচ্ছে। নাবালকদের তালেবান বাহিনীতে যোগ দিতে বাধ্য করা হচ্ছে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান আরও জানিয়েছেন, আফগানিস্তানে নারী অধিকারের বিষয়টি তারা সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন। তালেবান জানিয়েছিল, নারী অধিকার ইস্যুতে গতবারের চেয়ে তাদের এখনকার অবস্থান হবে ভিন্ন। কিন্তু বাস্তব রিপোর্ট তার সঙ্গে মিলছে না বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আফগানিস্তানের সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী ও ধর্মীয় সম্প্রদায়ের সঙ্গেও সহিংস আচরণ করা হচ্ছে বলে জাতিসংঘের কাছে রিপোর্ট এসেছে। এই প্রতিটি বিষয়ই অত্যন্ত চিন্তার কারণ বলে জানিয়েছেন মিশেল।

দেশটির মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে মঙ্গলবার জাতিসংঘের বিশেষ বৈঠক তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। পাকিস্তান ও ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) যৌথ আবেদনে ওই সভার আয়োজন করা হয়েছিল।

এদিকে জাতিসংঘের মানবাধিকার সংগঠন আফগানিস্তানে কাজ করছে উল্লেখ করে সংস্থাটি জানিয়েছে, এই রিপোর্ট পাওয়ার পরে তাদের আরও সতর্ক হতে বলা হয়েছে। সকল গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানানোর নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।

 

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: