গ্রাহক তথ্য চুরি: সমাধানে জুমের ব্যয় ৮৫ মিলিয়ন ডলার

নিউজনাউ ডেস্ক: ৮৫ মিলিয়ন ডলারে গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য চুরির এক মামলার সমাধান করেছে অনলাইন কনফারেন্সিং প্লাটফর্ম জুম। জুমের এক মুখপাত্র সংবাদ সংস্থা এএফপিকে বলেছে, ‘আমাদের গ্রাহকদের জন্য গোপনীয়তা ও নিরাপত্তা সবার আগে নিশ্চিত করে জুম এবং গ্রাহকরা আমাদের ওপর যে আস্থা রেখেছেন তার গুরুত্ব দিই আমরা।’

জনপ্রিয় ভিডিও কনফারেন্সিং প্রতিষ্ঠান জুম যুক্তরাষ্ট্রে তথ্য গোপনীয়তা আইনের এক মামলায় ৮৫ মিলিয়ন ডলারে নিষ্পত্তি করতে রাজি হয়েছে। জুম প্রশাসন বিষয়টি জানিয়েছে। জুমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, লাখ লাখ গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য ফেসবুক, গুগল এবং লিঙ্কডইন এর মত বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করেছে।

যদিও জুম অভিযোগ অস্বীকার করেছে এবং তারা বলছে, তারা নিরাপত্তা উন্নয়নে নতুন নতুন প্রযুক্তির অনুশীলন করছে। এদিকে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, অভিযোগটির রফাদফা হতে এখন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার স্যান হোসের জেলা জজ লাকি কোহ-এর অনুমোদন পেতে হবে। নিষ্পত্তির জন্য প্রাথমিক তথ্য অনুসারে, নোটিশ, প্রশাসনের খরচ, শ্রেণি প্রতিনিধিদের পরিষেবা দেয়া, আইনজীবীদের ফি এবং আদালতের খরচ পরিশোধ বাবদ নগদ ৮৫ মিলিয়ন ডলার প্রদান করতে হবে।

যারা জুমের অ্যাকাউন্টের সাবস্ক্রিপশনের জন্য অর্থ প্রদান করেছেন তারা তাদের সাবস্ক্রিপশনের জন্য জুমকে প্রদত্ত অর্থের ১৫ শতাংশ অর্থাৎ ২৫ ডলার করে দাবি করতে পারেন। এ ছাড়া যাদের সাবস্ক্রিপশন নেই তারা এর জন্য ১৫ ডলার করে দাবি করতে পারবেন।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে বিশ্ব জুড়েই মানুষজন ঘরে বসে অফিস, প্রশিক্ষন কিংবা ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদান করছেন। এ জন্য ভিডিও কনফারেন্সিং প্লাটফর্ম হিসেবে জুম ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। বিশেষ করে মিটিং করার জন্য বিনামূল্যে কিংবা সাবস্ক্রিপশনের মাধ্যমে ব্যবহার করা যায় জুম প্লাটফর্ম।

পরিশেষে বলা যায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেলেও গোপনীয়তা ও নিরাপত্তা নীতি নিয়ে খুব চাপে আছে জুম। তাদের দাবি ‘আমাদের প্লাটফর্মটির যে উন্নতি করেছি তার জন্য আমরা গর্বিত। সামনের দিনে গোপনীয়তা ও নিরাপত্তায় আরও নতুনত্ব আনার চেষ্টা করছি।’

 

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: