১০ ঘণ্টায় কোরবানির বর্জ্য অপসারণে চসিকের ৪ হাজার সেবক

চট্টগ্রাম ব্যুরো : কোরবানির পশুর বর্জ্য পুরোপুরি অপসারণ করতে সর্বোচ্চ ১০ ঘণ্টা সময় বেঁধে দিয়েছেন চটগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) মেয়র এম রেজাউল করিম। এ লক্ষ্যে এবার বন্দর নগরীতে চসিকের প্রায় ৪ হাজার সেবক কাজ করছে সকাল ৯টা থেকেই।

বুধবার (২১ জুলাই) ঈদের দিন সকাল থেকেই এসব কর্মীরা বর্জ্য অপসারণে নিয়োজিত আছেন বিভিন্ন ওয়ার্ডে।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের উপপ্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম চৌধুরী নিউজনাকে বলেন, সকাল ৯টা থেকে নগরীতে বর্জ্য অপসারণের কাজ শুরু হয়েছে। ৩৩০টি গাড়ি নিয়ে ৩ হাজার ৬০০ স্থায়ী-অস্থায়ী কর্মী বর্জ্য অপসারণে নিয়োজিত আছেন। তদারকিতে আছেন ১১০ জন কর্মকর্তা।

এদিকে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য নগরীকে চারটি জোনে ভাগ করে চারজন কাউন্সিলরকে মনিটরিংয়ের দায়িত্ব দিয়েছেন চসিকের মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী। তাদের সঙ্গে থাকবেন তিনজন করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা। আর পুরো নগরীতে বর্জ্য অপসারণের কার্যক্রম মনিটরিংয়ের দায়িত্বে আছেন কাউন্সিলর মোবারক আলী।

চসিক জানায়, সিটি করপোরেশনের দামপাড়া নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম তদারক করা হচ্ছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে পশুর বর্জ্য ডাম্পিং পয়েন্টে নিতে জোরেশোরে চলছে কাজ।দ্রুত বর্জ্য অপসারণের লক্ষ্যে চসিকের দামপাড়া অফিসে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। যার নম্বর ৬৩০৭৩৯ ও ৬৩৩৬৪৯।

এদিকে বন্দর নগরে পশু কোরবানির জন্য ৩০৪টি স্থান নির্ধারণ করেছিল চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। পাশাপাশি যত্রতত্র পশুর চামড়া না ফেলার নির্দেশনা রয়েছে। ফাড়িয়াদের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে চামড়া বিক্রি করতে হবে। অন্যথায় সংরক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। চামড়া বিক্রি তদারকিতে চসিকের ম্যাজিস্ট্রেট এবং পুলিশ মাঠে আছে।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: