বৃষ্টির পানির নানা গুনাগুণ

নিউজনাউ ডেস্ক: পৃথিবীর মধ্যে সব চেয়ে বিশুদ্ধ পানি হলো বৃষ্টির পানি। বৃষ্টির পানি পরিষ্কার করে সংরক্ষণ করলে দীর্ঘ দিন পান ও নানা কাজে ব্যবহার করা যায়। বিষন্নতা দূর করার জন্য অনেকেই আবার বৃষ্টি ভিজে আনন্দ প্রাপ্তি করে থাকেন । বৃষ্টির পানি যেমন মানুষকে আনন্দ প্রদান করে ঠিক তেমনি নানান উপকারে আসে এই পানি। একটি গবেষণা রিপোর্টে উঠে এসেছে,” বৃষ্টির পানি পান করা সবচেয়ে নিরাপদ। মাটি বা পাথরে থাকা মিনারেলস আর বর্জ্য, বৃষ্টির পানিতে থাকে না, সেকারণেই বৃষ্টির পানি পানে অগাধ উপকারিতা দেখছেন বিজ্ঞানীরা।” আজ আপনাদের জানিয়ে দেবো প্রকৃতির অপার দান বৃষ্টির পানির কতিপয় কিছু গুণাবলি।

শ্বাসপ্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে উপকারিতা: বৃষ্টি হওয়ার সময় প্রাকৃতিক বাতাস বিশুদ্ধ থাকে। তাই বৃষ্টির সময় দেহে বাতাস প্রবেশ করলে আমাদের শ্বাসপ্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে উপকার পাওয়া যায়। সেই সাথে শরীরে অবস্থান করা বাজে টক্সিন দূর হয়।

ফসলের জন্যে উপকারি: বৃষ্টির পানি ফসলের অত্যন্ত উপকারি। এতে কীট পতঙ্গ মরে যায় ও ফসল ভালো হয়। ফসলের পর্যাপ্ত পানির চাহিদা পূরণ করে বৃষ্টির পানি।

রাসায়নিক উপাদান মুক্ত পানি: বাড়িতে আমরা যে পানি ব্যবহার করি তা জীবাণুমুক্ত করতে ক্লোরিন ব্যবহার করা হয়। বেশি মাত্রায় ক্লোরিন বা ফ্লোরাইড পান করলে গ্যাসট্রাইটিস, মাথা ব্যাথার মতো সমস্যা হতে পারে। বৃষ্টির পানিতে ফ্লোরাইড বা ক্লোরিন, কোন উপাদানই থাকে না।

মানসিক অবসাদ দূর করে: বৃষ্টির সময় মাটির সোঁদা গন্ধের ঘ্রাণে আপনার মন আপনাআপনি ভালো হয়ে যাবে।গবেষকদের ভাষায় এ গন্ধকে বলা হয় “পেট্রিকোর”। বৃষ্টি পড়লে মটিতে উপস্থিত এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া বিশেষ এক ধরনের কেমিক্যাল ছড়ায়। যার ফলে এমন সোঁদা গন্ধ বের হয়। আর এ গন্ধ মানসিক অবসাদ দূর করতে বেশ সহায়ক।

ত্বকের পক্ষে উপকারী: বৃষ্টির পানি ত্বকের জন্য বেশ উপকারি। বিজ্ঞানীরা বলছেন, সুন্দর সুস্থ ত্বক পেতে হলে, বৃষ্টির পানি অত্যন্ত উপযোগী। ভারী বর্ষণের ফলে পরিবেশে যে জলীয় বাষ্প থাকে তা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। ফলে ত্বক হয় আরও উজ্জ্বল ও নমনীয়।

হজম শক্তি বাড়ায়: বৃষ্টির পানিতে থাকে অ্যালকালাইন pH যা অ্যাসিডিটি কমায়, হজমশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে: বৃষ্টির চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য অত্যন্ত উপকারি। এতে স্কাল্পে থাকা একাধিক ব্যাকটেরিয়া ও ময়লা দূর হয়ে যায়। ফলে, বৃদ্ধি হয় চুলের সৌন্দর্য। কেবল তাই নয়, খুশকি দূর করতেও দারুণ উপকারী এ বৃষ্টির পানি।

পাকস্থলীর সমস্যা দূর করে: প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ২ থেকে ৩ চামচ বৃষ্টির পানি খেলে পাকস্থলীর সমস্যা দূর হয়। পাকস্থলীতে অ্যাসিডিটি বা আলসার থাকলে বৃষ্টির পানি ওষুধের কাজ করে।

কাপড় পরিষ্কার কাজে সহায়ক: বৃষ্টির পানি দিয়ে কাপড় পরিষ্কার করলে কাপড়ের উজ্জ্বলতা বাড়ে। আসলে স্বাভাবিক পানির তুলনায়, বৃষ্টি পানিতে সাবান এবং ডিটারজেন্ট অনেক বেশি ও চমৎকার কাজ করে।

পশু ও পাখিদের জন্য উপকারি: বিড়াল, ঘোড়া, কুকুর এবং অন্যান্য প্রাণী বৃষ্টির পানিতে ভিজলে অনেক বেশি স্বাস্থ্যবান হয়ে ওঠে। এটা তাদের জন্য প্রাকৃতিক ঔষধ হিসেবে কাজ করে। পাখি ও কীটপতঙ্গরাও বৃষ্টির পানি পান করতে পছন্দ করে।

বৃষ্টির অনেক উপকারিতা কিন্তু ১০ থেকে ১২ মিনিটের বেশি সময় ধরে বৃষ্টিতে ভেজা উচিত নয়। এতে ঠাণ্ডা লেগে যাওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়। সকলেরেই বৃষ্টির পানি সংরক্ষণের চেষ্টা করা উচিৎ।

নিউজনাউ/আরবি/২০২১

 

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: