বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের ১৭ রুটে যাত্রীবাহী যানবাহন বন্ধ

বরিশাল ব্যুরো: বাস মালিক সমিতি ও নব শ্রমিক ইউনিয়নের যৌথ সিদ্ধান্তে সকাল ৮টার মধ্যে সাবেক রুপাতলী বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধার সম্পাদক সুলতান মাহমুদ সহ সকল আসামীকে গ্রেফতারের আলটিমেটাম দিয়ে সাড়ে ৪ঘন্টা বাস চলাচল বন্ধ রাখা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছিল বৃহস্পতিবার।

শুক্রবার সকাল ৮টার মধ্যে কোন হামলাকারী আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করতে না পারার প্রতিবাদে পুনরায় পটুয়াখালী মিনিবাস মালিক সমিতি ও বাস শ্রমিক ইউনিয়ন সকাল ৮টার পর দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীবাহী বাস সহ সকল ধরনের যান বাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়।

একই দাবিতে নগরীর নতুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল বাস মালিক সমিতি সমর্থন জানিয়ে তারও বরিশাল-ঢাকা রুটের যাত্রীবাহী বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়ার কারণে শত শত ঘড়মুখি যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছে বাস স্ট্যান্ড এসে।

এব্যাপারে মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাউছার হোসেন শিপন বলেন আমরা শুক্রবার সকাল ৮টার মধ্যে সকল আসামীকে গ্রেফতারের আলটিমেটাম দিয়ে গতকাল কোতোয়ালী মডেল থানা পুলিশের আশ্বাসে গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখা প্রত্যাহার করে নিয়ে গাড়ি চলাচলের অনুমতি দিয়ে ছিলাম।

পুলিশ তাদের কথা রক্ষা করতে না পারায় আমরা আমাদের পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গাড়ি চলাচল বন্ধ রেখে কর্মসূচি পালন করছি।

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বরিশাল নগরের রুপাতলীতে দুই গ্রুপ শ্রমিকদের সংঘর্ষের ঘটনার পর একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের একাংশের সাধারণ সম্পাদক আহম্মদ শাহরিয়ার বাবু বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন। মামলায় অপর কমিটির সভাপতি সুলতান মাহমুদসহ ৯ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম জানান,শ্রমিকদের মারধরের ঘটনায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। আর এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার না করা হলেও আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে।

শ্রমিকরা জানিয়েছে,সম্প্রতি বরিশাল জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের দুটি কমিটি নতুনভাবে গঠিত হয়। যার একটির সভাপতি সাবেক শ্রমিক নেতা সুলতান মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক সহিদুল ইসলাম টিটু। অপর কমিটির সভাপতি বরিশাল মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক পরিমল চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক আহম্মদ শাহারিয়ার বাবু।

এ কমিটি দুটি গঠনের পর থেকেই শ্রমিক নেতাদের মাঝে বিভিন্ন সময়ে ছোটখাটো মারামারি ও উত্তেজনাকর পরিস্থিতির ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে টার্মিনাল ভবনের নীচতলায় কাউন্টারের সামনে দুই গ্রুপ শ্রমিকদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এর পরপরই গোটা বাস টার্মিনাল এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে এবং বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

পরবর্তীতে পরিমল চন্দ্র দাস ও আহম্মদ শাহারিয়ার বাবু নেতৃত্বাধীন শ্রমিকরা অপর পক্ষের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ তুলে টার্মিনাল এলাকায় বিক্ষোভ শুরু করে এবং বরিশাল-পটুয়াখালী মহাসড়কের ওপর বাস আড়াআড়ি রেখে সড়ক অবরোধ করে দেয়। এতে রুপাতলী ও সাগরদী এলাকার কয়েক কিলোমিটার সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এছাড়া টার্মিনাল এলাকায় শ্রমিকদের বিক্ষোভ চলাকালে সুলতান মাহমুদ টার্মিনাল সংলগ্ন কার্যালয়ে তার লোকজন নিয়ে অবস্থান করছিলেন। যদিও পুলিশ তাদের বেশিক্ষণ সেখানে দাড়াতে দেয়নি। আর এতে লকডাউন শিথিলের পর প্রথম দিনেই যাত্রীরা ব্যাপক ভোগান্তি পড়েন।

নিউজনাউ/আরবি/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: