কিউবায় সরকারবিরোধী বিক্ষোভ, নিয়ন্ত্রণে কারফিউ জারি

নিউজনাউ ডেস্ক: কিউবায় ব্যাপকমাত্রায় সরকারবিরোধী বিক্ষোভ চলছে। রাজাধানী হাভানাসহ বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে ইতোমধ্যে দেশটিতে কারফিউ জারি করতে বাধ্য হয়েছে ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট সরকার।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমসমূহ কিউবার এই বিক্ষোভকে ‘বিরল’ ঘটনা বলে উল্লেখ করেছে। রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় ৩০ বছর পর এত বড় মাত্রায় বিক্ষোভ হলো দেশটিতে।

বিবিসি ও রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, বিক্ষোভের সূত্রপাত ঘটে রাজধানী হাভানা থেকে। কিউবার বর্তমান প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ ক্যানেলের পদত্যাগের দাবিতে স্লোগান দিয়ে মিছিল শুরু করেন তারা। পরে কিউবার পালমা সোরিয়ানো, সান্টিয়াগো, সান আন্তোনিও দে লস বানোসসহ বিভিন্ন ছোটবড় শহরেও বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

হাভানার বিক্ষোভে অংশ নেওয়া মিরান্ডা লাজারা (৫৩) নামে এক নৃত্য শিক্ষক মার্কিন বার্তাসংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে (এপি) বলেন, ‘আমরা খুবই কঠিন সময় পার করছি। দেশের সরকারব্যবস্থার পরিবর্তন ছাড়া এই দুঃসময় কাটবে না।

কিউবার প্রেসিডেন্ট ও ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির প্রধান মিগুয়েল দিয়াজ ক্যানেল অবশ্য এই বিক্ষোভের জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের ‘ভাড়াটে সৈন্যদের’ ষড়যন্ত্র সফল হবে না।

রবিবার সন্ধ্যায় দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন চ্যানেলে দেওয়া এক ভাষণে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের ভাড়াটে সৈন্যরা কিউবাকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে; কিন্তু তাদের এ ষড়যন্ত্র কখনো সফল হবে না। আমরা দেশের সব বিপ্লবী, কমিউনিস্টদের আহ্বান জানাচ্ছি আপনারা এই ভাড়াটে সেনাদের রুখে দিন।’

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হাভানায় বিক্ষোভকারী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে সংঘাত হয়েছে। আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা লাঠিচার্জ, পিপার স্প্রে ছোড়ার পাশাপাশি অন্তত কয়েক ডজন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করেছেন।

ফিদেল কাস্ত্রোর হাত ধরে ১৯৫৯ সালে কিউবায় কমিউনিস্ট শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত কমিউনিস্ট পার্টির নিয়ন্ত্রণে আছে দেশটি।

একসময় কিউবার প্রধান মিত্র ছিল সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন। ১৯৯২ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন ছিল ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির জন্য সবচেয়ে বড় ধাক্কা। এর প্রভাবে সৃষ্ট অর্থনৈতিক সংকটের জেরে ১৯৯৪ সালে কিউবায় বিশাল বিক্ষোভ হয়েছিল। তার প্রায় ৩০ বছর পর ফের বিক্ষোভ হচ্ছে দেশটিতে।

সূত্র : রয়টার্স, বিবিসি

নিউজনাউ/আরবি/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: