রোগির স্বজনদের পিটুনিতে ২ ইন্টার্ন চিকিৎসক আহত

কর্মবিরতিতে ইন্টার্ন চিকিৎসকেরা

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জে রোগীর স্বজনরা ২ ইন্টার্র্নি চিকিৎসককে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করেছে। শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে গোপালগঞ্জ আড়াইশ’ বেড জেনারেল হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। আহত গোপালগঞ্জ শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজের ইন্টার্র্নি চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তাহমিদ তানজিম আবির ও ইন্টার্র্নি চিকিৎসক আলমগীর হোসাইনকে গোপালগঞ্জ আড়াইশ’ বেড জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজের ইন্টার্র্নি চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহত তাহমিদ তানজিম আবির জানিয়েছেন এ ঘটনার প্রতিবাদে আমরা শুক্রবার রাত ৯ টা থেকে কর্ম বিরতি শুরু করেছি।

গোপালগঞ্জ বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ডা. হুমায়ূন কবির বলেন, গত ৭ জুলাই ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে সদর উপজেলার বাজুনিয়া গ্রামের আমিনুল ইসলাম বুলবুল (২১) ও হৃদয় শেখ (১৮) আহত হয়। ওই দিন তাদের আড়াই শ’ বেড জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে বুলবুলকে তার ভাগ্নে তানভির (১৪) দেখাশোনা করছিলো। বৃহস্পতিবার তানভির চিকিৎসকে ডাকতে যায়। এ সময় চিকিৎসক ওয়াশ রুমে ছিলেন। তার ডাকে সারা দিতে দেরি হয়। এই নিয়ে ইন্টার্র্নি চিকিৎসকের সাথে বাক বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে তানভির। রাত ৮ টার দিকে ওই দু’ চিকিৎসক হাসপাতাল থেকে নাস্তা করতে বের হন। হাসাপাতাল ক্যাম্পাসে লাঠিসোটা নিয়ে অতর্কিতে ৫/৭ জন লোক তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে ওই দু’ চিকিৎসক মারাত্মক আহত হয়েছেন।

গোপালগঞ্জ বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ডা. হুমায়ূন কবির এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে আরো বলেছেন, রাতের মধ্যে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা না হলে আমরা নতুন কর্মসূচী ঘোষণা করব।

অভিযুক্ত তানভীর বলে, ডাক্তারদের রুমের পাশে বসে আমি মোবাইলে গেম খেলছিলাম। চিকিৎসকদের ওয়েটিং রুমের আপত্তিকর দৃশ্য আমি মোবাইলে ধারণ করেছি। এ সন্দেহে চিকিৎসকরা আমরা মোবাইল কেড়ে নিয়ে মোবাইলের সব কিছু মুছে ফেলে। তারপর আমাকে তারা চড়-থাপ্পড় মারে।

গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি মোঃ মনিরুল ইমসলাম বলেন, অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে আমরা অভিযান শুরু করেছি। এছাড়া ডিবি পুলিশ ও মাঠে নেমেছে। দোষীদের গ্রেফতারে আমি নিজেও অভিযানে অংশ নিচ্ছি।

নিউজনাউ/আরবি/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: