উত্তপ্ত রূপগঞ্জ; পুলিশ-শ্রমিক ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

নিউজনাউ ডেস্ক : কারখানায় আগুন লাগার ঘটনায় রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে রূপগঞ্জ। হাসেম ফুডস লিমিটেড কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়।

ঢাকা পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এদিকে বিক্ষুব্ধরা কারখানার গেট সংলগ্ন আনসার ক্যাম্প থেকে চারটি শটগান ছিনিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। এ ঘটনায় ব্যর্থ হয়ে শ্রমিকরা শটগান পাশের খালে ফেলে চলে যায়। এ ঘটনায় তিনটি শটগান পানি থেকে উদ্ধার করা গেলেও একটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

এ ঘটনায় সংবাদ সংগ্রহে কারখানায় যাওয়া-আসার সময় শ্রমিকদের হামলার শিকার হন কয়েকজন সংবাদকর্মী। অনেক শ্রমিকের সন্ধান মিলছে না বলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে কারখানার মেইন গেটের বাইরে শ্রমিকরা জড়ো হয়ে এসব তাণ্ডব চালাচ্ছে বলে নিখোঁজের স্বজনরা জানান।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বিক্ষুব্ধ শ্রমিক ও জনতা মিলের গেটের সামনে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক এক ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে। এ সময় বিক্ষুব্ধরা আনসার, পুলিশ ও সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় সংবাদ সংগ্রহে আসা কয়েকজন সাংবাদিক শ্রমিকদের মারধরের শিকার হন। এ সময় শ্রমিকরা তাদের মোটরসাইকেল ভাঙচুরসহ হেলমেট ছিনিয়ে নেয়। বর্তমানে যান চলাচল কিছুটা স্বাভাবিক হলেও পরিস্থিতি থমথমে রয়েছে। এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এদিকে শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান, নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো. জাইদুল আলম ও রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ নুসরাত জাহানসহ প্রশাসনের অনেকে।

ঘটনাস্থলে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোস্তাইন বিল্লাহ দুঃখ প্রকাশ করে শ্রমিকদের শান্ত্বনা দিয়ে বলেন, নিহত শ্রমিকের পরিবারকে ২৫ হাজার টাকা ও আহতদের ১০ হাজার টাকা দেওয়া হবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরবর্তীতে এ ঘটনায় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রয়োজনে আরও সহযোগিতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজনাউ/এসএ/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: