বৈশ্বিক সুরক্ষা সূচকে দ্বিতীয় স্থানে সংযুক্ত আরব আমিরাত

নিউজনাউ ডেস্ক: যুদ্ধ, শান্তি এবং ব্যক্তিগত সুরক্ষা সূচকে দ্বিতীয় স্থানে সংযুক্ত আরব আমিরাত। ১৩৪টি দেশের তথ্য বিশ্লেষণে গ্লোবাল ফিন্যান্স ম্যাগাজিন এ সূচক প্রকাশ করে। এ সূচকে শক্তিশালী স্বাস্থ্য খাত ও করোনা মোকাবিলায় বিশেষ দক্ষতার জন্য বেশি স্কোর পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আমিরাত। দেশটিতে এ পর্যন্ত ৬৪.৩ শতাংশ নাগরিককে করোনা টিকার দুটি ডোজ দেয়া হয়েছে বলে তথ্য প্রকাশ করেছে গ্লোবাল ফিন্যান্স।

বিশ্বব্যাপী নিরাপদ দেশ হিসেবে স্বীকৃত আইসল্যান্ড। তারপরেই সূচকে স্বীকৃতি পাওয়া দেশগুলো যথাক্রমে, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, সিঙ্গাপুর, ফিনল্যান্ড, মঙ্গোলিয়া, নরওয়ে, ডেনমার্ক, কানাডা এবং নিউজিল্যান্ড। গ্লোবাল ফিন্যান্স ম্যাগাজিনে উপসাগরীয় দেশগুলোর মধ্যেও নিরাপদ দেশগুলোকে আলাদাভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। যার মধ্যে কাতার তৃতীয়, বাহরাইন দ্বাদশ, কুয়েত ১৮ তম, সৌদি আরব ১৯ তম এবং ওমান ২৫ তম স্থানে রয়েছে।

অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দেশের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ১১তম, সুইজারল্যান্ড ১৪তম, জাপান ২২তম, চীন ২৬তম, যুক্তরাজ্য ৩৮তম, মিশর ৬৫তম, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৭১তম, ভারত ৯১তম এবং পাকিস্তান ১১৬তম অবস্থানে রয়েছে। সূচকের নিচের দিকে রয়েছে ফিলিপাইন, কলম্বিয়া, গুয়াতেমালা, নাইজেরিয়া, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা, ব্রাজিল, মেক্সিকো, পেরু, ইয়েমেন এবং উত্তর ম্যাসেডোনিয়া।

করোনা প্রতিরোধে সূচকের শীর্ষে থাকার কথা থাকলেও অন্যান্য ক্ষেত্রে সুরক্ষার খুব বেশি ঘাটতি থাকায় সূচকের নিচের দিকে রয়েছে ফিলিপাইন, নাইজেরিয়া, ইয়েমেন এবং এল সালভাডোর। দেশগুলো স্বাভাবিকভাবেই বেশি প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও সংঘাতপূর্ণ দেশ।

গ্লোবাল ফিনান্স জানিয়েছে, “ফিলিপাইন, নাইজেরিয়া, ইয়েমেন এবং এল সালভাদোরের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঝুঁকিপূর্ণ মারাত্মক নাগরিক সংঘাতের দেশগুলি কোভিড -১৯ থেকে তুলনামূলকভাবে কম মৃত্যুর সংখ্যা জানায়, তবে সামগ্রিকভাবে সুরক্ষার দিক থেকে খারাপ ফল করেছে,” গ্লোবাল ফিনান্স জানিয়েছে ।

নিউজনাউ/এসএ/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: