কানাডায় তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে ১২৫ বছরের রেকর্ড: ৬৯ জনের মৃত্যু

আহসান রাজীব বুলবুল কানাডা থেকে: কানাডার আলবার্টার ক্যালগারি শহর ১২৫ বছরের পুরানো তাপমাত্রার রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। কানাডার স্থানীয় গণমাধ্যম “ক্যালগেরি হ্যারল্ড” জানায়- মঙ্গলবার শহরটি আরও একটি রেকর্ড হিট করতে পারে কারণ অঞ্চলজুড়ে জ্বালানি ব্যবহার সোমবার থেকে এনাম্যাক্সের রেকর্ডকে শীর্ষে রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে। কানাডায় গত কয়েকদিন তাপমাত্রা অব্যাহত থাকায় অস্বস্তি আর অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে কানাডাবাসী।

পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন কানাডার ওয়েবসাইট অনুসারে, ক্যালগরিতে ২৯ শে জুনের সর্বশেষ রেকর্ডটি ১৮৯৬ সালে ৩৪.৪ সেন্টিগ্রেডে রেকর্ড করা হয়েছিল, মঙ্গলবারের পূর্বাভাসটি ৩৬ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড ছিল এবং তাপমাত্রা আরো বাড়তে পারে।

অন্যদিকে কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় গত রোববার ৪৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। প্রচণ্ড তাপমাত্রায় বিভিন্ন জায়গার অবকাঠামো গলছে।
শীতে অভ্যস্ত কানাডিয়ানরা তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে অনেকটাই বিব্রত।

উল্লেখ্য কানাডার অধিবাসীরা শীত প্রধান দেশে থেকে অভ্যাসত হওয়ায় তীব্র এই তাপমাত্রা সহজ ভাবে নিতে পারছে না। গত কয়েকদিন ধরেই তাপমাত্রা নতুন নতুন রেকর্ড গড়ে চলছে।

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে মেরু এলাকাগুলোয়ও রেকর্ডভাঙা গরম দেখা যাচ্ছে। এ বিষয়ে এনভায়রনমেন্ট কানাডা সংস্থার জ্যেষ্ঠ জলবায়ুবিদ ডেভিড ফিলিপস বলেন, ‘মরুভূমির মতো গরম পড়ছে। কানাডা বিশ্বের দ্বিতীয় শীতলতম ও তুষারপাতপ্রবণ দেশ। আমরা তুষারঝড়ের সঙ্গে পরিচিত। এমন তীব্র গরমের সঙ্গে অভ্যস্ত নই। এখন আমাদের এখানকার চেয়ে দুবাইয়ে তুলনামূলক কম গরম পড়ছে’।

রেকর্ডভাঙা তাপামাত্রার কারণে গরমে হাঁপিয়ে ওঠা কানাডা বাসীকে পুল এবং আইসক্রীমের দোকনে ভিড় করতে দেখা গেছে। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের হিটওয়েভ মাত্র শুরু হয়েছে। সামনে বাড়বে তাপমাত্রা।

তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে ঘর থেকে অনেকেই বের হতে পারছেন না । কেউ আবার প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যাচ্ছেন না। এই গরমে ছায়াযুক্ত স্থানে থাকার পাশাপাশি বেশি করে পানি পানের পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।

বিশিষ্ট কলামিস্ট উন্নয়ন গবেষক ও সমাজতাত্ত্বিক বিশ্লেষক মোঃ মাহমুদ হাসান বলেন, কানাডার প্রবাস জীবনে এই প্রথম এই ধরনের তাপমাত্রা বৃদ্ধির অভিজ্ঞতায় সবাইকে অস্থির করে তুলেছে। বিশেষ করে এখানে জন্ম নেয়া আমাদের ছেলেমেদের কাছে এমন উচ্চ তাপমাত্রার আবহাওয়া নিতান্তই অস্বস্তিকর। কোভিড-১৯ এর মানসিক উদ্বিগ্নতার পাশাপাশি, রেকর্ড তাপমাত্রা বৃদ্ধি জনজীবনের জন্য মোটের সুখকর অভিজ্ঞতা নয়।

উল্লেখ্য কানাডার অন্যান্য প্রদেশেও গত কয়েকদিন ধরে অব্যাহত তাপমাত্রা বৃদ্ধির খবর পাওয়া গেছে। তবে তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে বড় ধরনের কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

নিউজনাউ/এফএস/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: