‘‘আমৃত্যু দলের কর্মী হয়েই কাজ করবো’’- বিপ্লব বড়ুয়া

বিশেষ প্রতিনিধি : নয়া দপ্তর সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর তাৎক্ষনিক এক প্রতিক্রিয়ায় ব্যরিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেছেন, সম্মেলনে আমাকে দপ্তর সম্পাদকের দায়িত্ব দিয়েছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। এটি অত্যন্ত গৌরব ও মর্যাদার বিষয়। আমার প্রতি যে আস্থা নেত্রী ও আমার দল দেখিয়েছেন কাজের মাধ্যমে তার প্রতিদান দেয়ার চেষ্টা করবো। আমৃত্যু আমি প্রাচীনতম এই দলটির ক্ষুদ্র এবং নগন্য কর্মী হিসেবে কাজ করে যাবো। সভানেত্রী আমার প্রতি যে আস্থা রেখেছেন তার প্রতিদান দেবার সব্বোর্চ চেষ্টাই হবে আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ব্রত।

শনিবার (২১ ডিসেম্বর) আওয়ামী লীগের ২১তম সম্মেলনে দলের দপ্তর সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ার পর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, টানা তিন মেয়াদে আমাদের দল ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় সবক্ষেত্রেই ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। এই উন্নয়নের সুফল যাতে দেশের প্রতিটি মানুষ পায় সেজন্য সবক্ষেত্রে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও ন্যায়পরায়নতা নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছেন আমাদের নেত্রী। তিনি নিজেও এ বিষয়গুলোতে ব্যক্তিগতভাবে খুব জোর দেন। এবারের সম্মেলনেও এসব বিষয়ে নজর দেয়ার বার্তা দিলেন তিনি।

বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, দলীয় কাউন্সিলে আওয়ামী লীগ সবসময় সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক সময় বাংলাদেশের স্বাধীকার আন্দোলন সংগঠিত করেছে, যার ধারাবাহিকতায় মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়ে দেশকে স্বাধীন করেছে। ৭৫ পরবর্তী সময় স্বৈরাচার হটিয়ে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করেছে। পরে দেশের মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার নিশ্চিত করাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এই দল। এবারেও ঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছে আওয়ামী লীগ। অল্প কিছুদিনের মধ্যেই এর সুফল দেখতে পারবে দেশবাসী।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার সন্তান বিপ্লব বড়ুয়া ২০১৬ সালের দলের ২০তম সম্মেলনে উপ দপ্তর সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছিলেন। সাংগঠনিক দক্ষতায় পদোন্নতি পেয়ে এবার দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ দপ্তর সম্পাদক হয়েছেন তিনি। এছাড়াও তিনি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারীর দায়িত্ব পালন করছেন।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান