পাহাড়ে ঝুঁকি নিয়ে বসবাস, স্থায়ী সমাধান ভাবছে প্রশাসন

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামে পাহাড়ে অবৈধ ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসরতদের স্থায়ীভাবে ঝুঁকিমুক্ত করার ব্যাপারে স্থায়ী সমাধানে যাওয়ার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামে নবনিযুক্ত বিভাগীয় কমিশনার কামরুল হাসান। এনিয়ে সকলের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে সরকারকে একটি প্রস্তবনাও দেওয়া হবে বলে জানা তিনি।

মঙ্গলবার (৮ জুন) চট্টগ্রামের মতিঝর্ণা এলাকায় পাহাড় পরিদর্শন করে একথা জানান তিনি। তিনি বলেন, পাহাড় নিয়ে আমরা যাতে স্থায়ী সমাধানের দিকে যেতে পারি সেই চিন্তা ভাবনা চলছে। মূলত সেই কারণেই আজ সরেজমিনে পাহাড় পরিদর্শনে এসেছি।

পরিদর্শনে আসার মূল কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, কিভাবে পাহাড় ধসে প্রাণহানি প্রতিরোধে স্থায়ী সমাধান দেওয়া যায়। কিভাবে পরিবেশ বাঁচানো যায় এবং কিভাবে পাহাড় রক্ষা করা যায় তা নিয়েও সকল স্টেইকহোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। বার বার যাতে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয় সেজন্য সরকারকে একটি প্রস্তবনা দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, বিগত সময়ে পাহাড় ধসে মানুষ মারা গিয়েছিল। এ বছর পাহাড় ধসে যেন মানুষ মারা না যায় সেজন্য আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়েছি। ৬ তারিখে যে ভারী বৃষ্টি হচ্ছিল তাতে আমরা পাহাড় ধসের আশঙ্কায় ছিলাম। সে জন্য লোকজনকে আমরা আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে আসছি। এছাড়া যারা ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাস করছেন তাদের ঘরগুলো তালাবদ্ধ করে দিয়েছি। যাতে পাহাড় ধস হলে মৃত্যু না হয়।

মতিঝর্ণা এলাকায় পরিদর্শন শেষে বিভাগীয় কমিশনার লালখান বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে পরিদর্শন করেন। যেখানে পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে বসবাস করা কয়েকটি পরিবার আশ্রয় নিয়েছে।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রামে নগরীতে সরকারি বেসরকারি ১৭টি পাহাড় রয়েছে। এতে প্রায় সাড়ে আটশ পরিবার ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাস করছেন।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: