বায়ান্ন পরিবারের অভিষেক ও সিআইপি সংবর্ধনা

নিউজনাউ ডেস্ক : বিশ্বায়নে বাংলা এই স্লোগান নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাত্রা শুরু করলো বায়ান্ন টিভি। এটি আরব আমিরাত সরকার অনুমোদিত প্রথম ও একমাত্র বাংলাদেশী টেলিভিশন। শুক্রবার দুবাইয়ের একটি পাঁচ তারকা হোটেলে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আমিরাতে নিযুুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফর। এসময় তিনি বলেন, যারা কাজের আশা দিয়ে দেশ থেকে ভিজিটে লোক এনেছেন আবার এইসব লোক রাস্তার ঘুরছেন। তাদেরকে কাজ অথবা দেশে ফেরত পাঠাতে হবে। তপ্ত রোদের মাঝে এরা রাস্তায় ঘুরবে এটা মেনে নেয়া যাবে না। তিনি আরো বলেন, আমিরাতে বাংলাদেশ সমিতি, বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের পর তৃতীয় বৈধ প্রতিষ্ঠান হিসেবে বায়ান্ন টিভি যাত্রা করেছে।

বায়ান্ন টিভির চেয়ারম্যান সিআইপি মাহতাবুর রহমান নাসিরের সভাপতিত্বে ও বার্তা সম্পাদক তিশা সেনের পরিচালনায় শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন সাইফুর মাহমুদ। অনুষ্ঠানের বিষয় আর বায়ান্ন টিভির আমিরাত ও লন্ডন সরকারের অনুমোদন নিয়ে কথা বলেন বায়ান্ন সম্পাদক ও সিইও লুৎফুর রহমান। এ সময় বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কনসুলেট জেনারেল দুবাইয়ের ডেপুটি কনসাল জেনারেল শাহেদুল ইসলাম।

এ সময় বায়ান্ন টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সালেহ আহমদ বলেন, যে কোন ইভেন্ট আয়োজন বা ম্যাগাজিন প্রকাশনা বের করতে আর দূরে যেতে হবে না সকল বাংলাদেশি বায়ান্ন টিভির লাইসেন্স ব্যবহার করতে পারবেন। বায়ান্ন পরিচালক শাহাদাত হোসেন, হাজী শফিকুল ইসলাম, এম এ কুদ্দুছ খাঁ মজনু, হাবিবুর রহমান, রুজেল তরফদার সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে এবং নিজেদের পথচলায় সাথে থাকার আহবান রেখে বক্তব্য রাখেন। সংবর্ধিত সিআইপিদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন সিআইপি মাহাবুব আলম মানিক। অনুষ্ঠানে আমিরাত সরকার নিবন্ধিত বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল দুবাইয়ের সিনিয়র সহ সভাপতি আইয়ূব আলী বাবুল, বাংলাদেশ সমিতি দুবাইয়ের আহবায়ক অধ্যাপক আব্দুস সবুর, বাংলাদেশ সমিতি শারজাহের সিনিয়র সহ সভাপতি ইসমাইল গণি ও বাংলাদেশ সমিতি ফুজাইরাহের সভাপতি প্রকৌশলী মাসুদুল হক বায়ান্ন টিভিকে অভিনন্দন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে ২০১৮ সালে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক মনোনীত আমিরাতে বসবাসরত সিআইপি মাহতাবুর রহমান, মাহাবুব আলম মানিক, জেসমিন আক্তার, আবুল কালাম, জাহাঙ্গীর আলম ও শিমুল মোস্তাফাকে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন রাষ্ট্রদূত। এ সময় বায়ান্ন টিভির পরিচালকদের হাতেও অভিনন্দন স্মারক তুলে দেন রাষ্ট্রদূত। এ সময় বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তি উপলক্ষে ‘৫০ বছরে সোনার বাংলা’ নামক বিশেষ প্রকাশনার মোড়ক উন্মোচন করা হয়। সবশেষে হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: