রামপালে ইয়াসের দাপটে ভেসে গেছে কোটি টাকার মৎস্যঘের

রামপাল প্রতিনিধি: উপকুলীয় এলাকায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাব ও পূর্নিমার জোয়ারে পানি স্বাভাবিক উচ্চতা ছাড়িয়েছে। তাতে প্লাবিত হয়েছে বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার নিম্নাঞ্চল। একদিকে বৃষ্টি অন্যদিকে জোয়ারের পানি লোকালয়ে ঢুকে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে উপজেলার কয়েকটি গ্রামের মানুষ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘুর্নিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সকাল থেকেই রোদ বৃষ্টির লুকোচুরি খেলা চলছে। থেমে থেমে বৃষ্টিপাত অব্যাহত আছে। সময়ের সাথে বেড়েছে বাতাসের তীব্রতা। উপজেলার নদী তীরবর্তী রামপাল সদর, হুড়কা, বাইনতলা ইউনিয়নের শোলাকুড়া, তালবুনিয়া, বড়কাটাখালি, রাজনগর, তালবুনিয়াসহ বেশকিছু এলাকার ঘরবাড়ি জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। কোথাও কোথাও পানির তোড়ে ভেসে গেছে মৎস্য ঘের। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অনেক গবাদি পশুর খামারও। স্থানীয়দের আশঙ্কা, জল নেমে গেলেই গবাদিপশুর তীব্র খাদ্য সংকট দেখা দিতে পারে।

একদিকে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাব, সাথে পূর্নিমার জোয়ার মিলে মোংলা-ঘষিয়াখালী চ্যানেল যেনো ফুঁসে উঠেছে। এতে চ্যানেল সংলগ্ন হুড়কা ইউনিয়নের বগুড়া ব্রীজের উত্তরপাশে বাঁধ ভেঙ্গে ওই এলাকা প্লাবিত হয়ে প্রায় শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। খবর পেয়ে বুধবার (২৬ মে) দুপুরে নবনিযুক্ত বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুর রহমান ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। তিনি স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ মোয়াজ্জেম হোসেন ও সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান তপন গেলদারসহ অন্যান্যদের সাথে নিয়ে পরিদর্শন শেষে প্রায় অর্ধশতাধিক দূর্গত পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন। তিনি তাৎক্ষনিভাবে বাঁধ মেরমত করার নির্দেশনা দিয়েছেন।

জেলা প্রশাসক বলেন ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রস্তুতি হিসাবে বাগেরহাটে ৩৪৪ টি স্থায়ী আশ্রয়কেন্দ্র এবং ৬২৯ টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছিল। বিভিন্ন স্থানে যতটুকু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তার তথ্য আমরা সংগ্রহ করার চেষ্টা করছি। ত্রাণ মন্ত্রানালয়ে জানানো হয়েছে। সেখান থেকে আমরা আরো বরাদ্দ পাচ্ছি। আশা করছি অনতিবিলম্বে ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারবো।

রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কবীর হোসেন জানান, জোয়ারের পানিতে রামপাল উপজেলার বেশকিছু এলাকা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। পিআইও এবং সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানদের এ ব্যাপারে সার্বিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। জলোচ্ছ্বাসে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ৯শ ১৭টি চিংড়ি ঘের তলিয়ে গেছে। এতে ভেসে গেছে প্রায় কোটি টাকার মাছ।

নিউজনাউ/এসএ/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: