নাতি বউকে মিরসরাই আ’লীগ নেতা গিয়াসের কু-প্রস্তাব, থানায় জিডি

চট্টগ্রাম ব্যুরো: স্বামীর অত্যাচারের বিচার ও সমাধান চাইতে গিয়ে কু-প্রস্তাব পেলেন এক ভুক্তভোগী নারী। সেটি বাইরে জানালে নারীটিকে হত্যার হুমকিও দিয়েছেন কু-প্রস্তাব দেওয়া মিরসরাই উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন।

গত ২২ মে ওই ভুক্তভোগী নারী নিরাপত্তা চেয়ে মিরসরাই থানায় একটি সাধারণ ডায়রি ( ৯০১/২০২১) করেছেন। জিডিতে তিনি আওয়ামীলীগ নেতা গিয়াস উদ্দিনের সাথে তার নাতি বউয়ের সর্ম্পক রয়েছে বলে উল্লেখ্য করেন।

জিডি মতে জানা গেছে, গত ১৪ জানুয়ারি আনোয়ার হোসেন নামে এক ব্যক্তির সাথে উপজেলার মায়ানী ইউনিয়নের মধ্যম মায়ানী গ্রামের ওই তরুনীর বিয়ে হয়। প্রথম স্ত্রীর অনুমতি নিয়ে ২১ বছর বয়সি ওই তরুনীকে বিয়ে করে আনোয়ার। বিয়ে শর্ত ছিল বিয়ের পরে আনোয়ার ওই তরুনীকে ভাড়া বাসায় রাখবেন। তবে বাসায় প্রথম স্ত্রী আসতে পারবেন না। কিন্তু বিয়ের কিছু দিন পরে আনেয়ার তার প্রথম স্ত্রীকে বাসায় নিয়ে আসে। এর প্রতিবাদ করলে আনোয়ার ওই তরুনীর অমানুষিক নির্যাতন চালায় আনোয়ার।

ওই তরুনী জিডিতে আরো উল্লেখ্য করেছেন, তার স্বামী আনোয়ার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিনের আত্মীয়। সেই সুবাদে বিষয়টি তাকে অবহিত করলে সমাধানের আশ্বাস দেন গিয়াস উদ্দিন। পরবর্তীতে তার সরলতার সুযোগ নিয়ে কুরুচিপূর্ণ ও অশ্লীল কথাবার্তা বলে কু প্রস্তাব দেন। এছাড়া বিষয়টি বাইরে প্রচার করলে তাকে হত্যার হুমকী দেবে বলে জিডিতে উল্লেখ্য করা হয়। গিয়াস উদ্দিনের পক্ষে মায়ানী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম সরোয়ার তাকে হত্যার হুমকী দেয় বলে জিডিতে উল্লেখ্য করা হয়।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গিয়াস উদ্দিনের ছবি সম্বলিত একটি অডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়েছে। যাতে একজন তরুণীকে বলতে শোনা যাচ্ছে, ‘হ্যাঁ বলেন, শুনতেছি। আপনি ফোন দিলেন যে?’ উত্তরে পুরুষ কণ্ঠকে বলতে শোনা যায়, ‘আমিতো বলেছি আমি ফোন দিবো, আচ্ছা এখন একটু আদর করে দাও!’ এরপর তরুণী বলেন, ‘না এখন না, পরে।’ সঙ্গে সঙ্গে পুরুষ কণ্ঠে বলা হয়, ‘আচ্ছা ঠিক আছে, ওকে! সরি! এখন কথা বলা যাবে?’ তরুণীর জবাব- ‘হ্যাঁ বলেন’। এরপর পুরুষটি বলেন, ‘শোনো, কালকে তোমার নানী আমার সঙ্গে এসব নিয়ে অনেক কথা বলেছে, আমি তখন টকশো এবং কিছু নিউজ দেখছিলাম।’ এরপর তরুণী বলে উঠেন, ‘আমি তো বিষয়টি নিয়ে আপনার কাছে বিচার চেয়েছি, কিন্তু আপনি তো বন্ধুত্ব করতে চাইছেন। তাহলে তো সব বাদ দিয়ে বন্ধুত্ব আগে তাই না!’

এ বিষয়ে মিরসরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মজিবুর রহমান জানান, গত ২২ মে একজন নারী গিয়াস উদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে একটি জিডি করেছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

এবিষয়ে মিরসরাই উপজেলা পরিষদেও সাবেক চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন বলেন, আমাকে রাজনৈতিকভাবে ফাঁসানোর জন্য পরিকল্পিতভাবেই এইসব করা হয়েছে। যেহেতু ছেলেটি আমার আত্মীয়, মেয়েটি নাতিন বউয়ের মতো তাই আমি কথা বলেছি। ওদের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেছি। কিন্তু আমি বুঝতে পারি নি, আমাদের দুইজনের কথা কেউ সে রেকর্ড করে সেটা খন্ডিতভাবে প্রকাশ করবে।

কথোপকথনটি তার বলে স্বীকার করে গিয়াস বলেন, যদিও খন্ডিতভাবে সেটি প্রকাশ করা হয়েছে। কিন্তু তার সেভাবে কথা বলা ভুল হয়েছে। তবে তিনি হত্যার হুমকি দেননি বলেও জানান।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২১

+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
আপনার মতামত জানান
%d bloggers like this: