স্বাদ-ঘ্রাণশক্তি নেই মানেই কি করোনা?

নিউজনাউ ডেস্ক: করোনাকালে ঘ্রাণশক্তিই এখন সবচেয়ে বড় চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ করোনার অন্যতম একটি উপসর্গ ঘ্রাণশক্তি হারিয়ে ফেলা বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

লন্ডনের কিংস কলেজের কোভিড-১৯ ট্র্যাকার অ্যাপের মাধ্যমে পাওয়া ফলাফলে দেখা গেছে, এই অ্যাপ ব্যবহারকারী অনেকেই যারা করোনা রোগে আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের ৫৯ শতাংশই বলেছেন তারা জিভে স্বাদ না পাওয়ার সাথে সাথে নাকে গন্ধও পাচ্ছেন না।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস বিশ্ববিদ্যালয়, ইংল্যান্ডের নটিংহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয় ও কিংস কলেজের যৌথ এক গবেষণায় দেখা গেছে, তাদের অ্যাপ ব্যবহারকারীদের মধ্যে যে প্রায় সাত হাজার লোক পরীক্ষায় কোভিড পজিটিভ হয়েছেন, তাদের ৬৫ শতাংশই বলছেন তাদের স্বাদ-গন্ধ নেওয়ার ক্ষমতা চলে গিয়েছিল।

স্বাদ এবং ঘ্রাণশক্তি হারিয়ে ফেলা কয়েক জনের লালারস পরীক্ষায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার প্রমাণ মিলেছে বলে ব্রিটেন এবং আমেরিকার মতো দেশ মে মাসেই এই দুই উপসর্গকে করোনা সংক্রমণের প্রাথমিক লক্ষণ বলে জানিয়ে দেয়।

ভারতের স্নায়ুরোগ বিশেষজ্ঞ জয়ন্ত রায় জানান, ৩০ থেকে ৩২ শতাংশ করোনা আক্রান্ত রোগীর ক্ষেত্রেই স্নায়ুতন্ত্রে প্রভাব পড়ে। সবটাই যে বিপজ্জনক, এমন নয়। স্নায়ুতন্ত্রে প্রভাব পড়ছে বলেই সেই থেকেই ঘ্রাণশক্তি কিংবা স্বাদের সমস্যা হচ্ছে।

স্বাদ-গন্ধ না পেলেই কি করোনা

এই প্রসঙ্গে চিকিৎসকরা বলেন, একদমই তা নয়। গন্ধের সঙ্গে স্বাদের সমস্যাও হবে। ঘ্রাণশক্তি সম্পূর্ণভাবে চলে গিয়েছে বেশ কিছু কোভিড কেসের ক্ষেত্রে। কারও ক্ষেত্রে নাক বন্ধ হয়ে যায় বা নাক দিয়ে জল পড়ে, সে ক্ষেত্রে শ্বাস নিতে সমস্যা হবে অন্য ভাইরাসের ক্ষেত্রে। তবে তা সামান্য। এটা কিন্তু কোভিড নয়। কোভিডের ক্ষেত্রে ঘ্রাণশক্তি সম্পূর্ণ চলে গেলে নাকের মাধ্যমে শ্বাস-প্রশ্বাসে প্রভাব পড়ছে কম। নাক দিয়ে শ্বাস নিতে সমস্যা হচ্ছে না খুব একটা।

এই প্রসঙ্গে জনস্বাস্থ্য চিকিৎসক সুবর্ণ গোস্বামী বলেন, কোভিডের ক্ষেত্রে শুধু নয়, অনেক ক্ষেত্রে যে কোনও ভাইরাল জ্বরেই স্বাদ-গন্ধ চলে যায়। শুধু স্বাদ-গন্ধ চলে গেলেই কোভিডে এমনটা নয়। সঙ্গে আরও কিছু দেখা প্রয়োজন।

নিউজনাউ/টিএন/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...