শুভ জন্মদিন ভালোবাসার কবি হেলাল হাফিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘কষ্ট নেবে কষ্ট, হরেক রকম কষ্ট আছে, কষ্ট নেবে কষ্ট! লাল কষ্ট নীল কষ্ট কাঁচা হলুদ রঙের কষ্ট, পাথর চাপা সবুজ ঘাসের সাদা কষ্ট, আলোর, মাঝে কালোর কষ্ট…’ এই যে কষ্টের এতো রং, গতিপ্রকৃতি তা বোঝার সাধ্য আমাদের সাধারণদের মধ্যে নেই। কিন্তু একটা মানুষ বুঝেছিলেন। তিনি দ্রোহ ও ভালোবাসার আধুনিক কবি হেলাল হাফিজের ৭৩তম জন্মদিন আজ। ১৯৪৮ সালের এই দিনে নেত্রকোনার আটপাড়া উপজেলার বড়তলী গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। কবির শৈশব, কৈশোর ও যৌবন কেটেছে নিজ শহর নেত্রকোনায়।

১৯৬৭ সালে নেত্রকোনা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে একই বছর কবি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে ভর্তি হন তিনি। কবি হেলাল হাফিজের লেখালেখির সূচনা ঘটে ১৯৬৯ সালে দেশের উত্তাল সময়ে। গণঅভ্যুত্থানের সময় রচিত ‘নিষিদ্ধ সম্পাদকীয়’ কবিতাটি তাকে কবিখ্যাতি এনে দেয়।
‘এখন যৌবন যার, মিছিলে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময়/ এখন যৌবন যার, যুদ্ধে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময় কালজয়ী’ কবিতার এ লাইন দুটি বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। ১৯৮৬ সালে প্রকাশিত হয় প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘যে জলে আগুন জ্বলে’। ২৬ বছর পর ২০১২ সালে প্রকাশিত হয় তার দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘কবিতা একাত্তর’। গত ডিসেম্বরে প্রকাশ হয় ৩৪টি কবিতা নিয়ে তার দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ ‘বেদনাকে বলেছি কেঁদো না’। ২০১৪ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার পান কবি হেলাল হাফিজ।

কবি প্রথম জীবনে সাংবাদিকতাকে পেশা হিসবে বেছে নিয়েছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রাবস্থায় ১৯৭২ সালে সাহিত্য সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন দৈনিক পূর্বদেশে। ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত সেখানেই কর্মরত ছিলেন তিনি। পূর্বদেশ বন্ধ হয়ে গেলে ১৯৭৬ সালের শেষ দিকে হেলাল হাফিজ দৈনিক দেশ পত্রিকায় সাহিত্য সম্পাদক হিসেবে যোগ দান করেন। সর্বশেষ দৈনিক যুগান্তরের ফিচার সম্পাদক ছিলেন তিনি।

নিউজনাউ/এমএএম/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...