মিয়ানমারে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত

নিউজনাউ ডেস্ক: মিয়ানমারের সাধারণ নির্বাচন ও ভোটগ্রহণ পর্ব শুরু হয়েছে রবিবার ভোর ছয়টা থেকে। । নব্বইয়ের দশকে শুরু হওয়া সামরিক শাসনের পর এটাই দেশটির দ্বিতীয় গণতান্ত্রিক সাধারণ নির্বাচন।

তবে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের মতো বেশ কয়েকটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী এই নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ বা প্রার্থী হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন না। ধারণা করা হচ্ছে, ২০১৫ সালের মতো এবারও অং সান সুচির ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবেন।

এদিকে বিদেশি নাগরিকের সঙ্গে বিয়ে হওয়া এবং মিয়ানমার ব্যতীত ভিন দেশের নাগরিকত্ব থাকা সন্তানের অভিভাবক হওয়ায় দেশটির প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন না সুচি। ২০১৫ সালেও নির্বাচনে বিজয়ী সুচি দেশটির প্রধানমন্ত্রী হতে পারেননি। মিয়ানমারের অবিসংবাদিত এই নেত্রী হয়েছেন ‘স্টেট কাউন্সিলর’।

নির্বাচনে বিজয়ী হতে হলে দুই কক্ষবিশিষ্ট দেশটির সংসদের হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে কমপক্ষে ২২১টি আসন এবং হাউস অব ন্যাশনালিটিস এ কমপক্ষে ১১৩টি আসন জয় করতে হবে। কোনো রাজনৈতিক দল এককভাবে অথবা একাধিক রাজনৈতিক দল যুগ্মভাবে এই আসনগুলো পেলে যুক্ত সরকার গঠন করতে পারবে।

সাধারণ নির্বাচন হলেও এবার বেশ কয়েকটি বিদ্বেষপূর্ণ স্থানে ভোট প্রদানের কোনো ব্যবস্থা করেনি দেশটির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন। নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী এবং সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীদের এই নির্বাচনের বাইরে রাখা হচ্ছে। এদের মধ্যে রোহিঙ্গারাও রয়েছেন। নিপীড়িত রোহিঙ্গাসহ প্রায় ২৬ লাখ সংখ্যালঘুকে ভোটাধিকারবঞ্চিত করে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এ নির্বাচন।

এদিকে গত ২৯ অক্টোবর আগাম ভোটের মাধ্যমে নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন অং সান সু চি। এই নির্বাচনে বিজয়ী দল ২০২১ সালের মার্চ মাসে সরকার গঠন করবেন।

নিউজনাউ/এমএএম/এনএইচএস/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...