মিনি সুন্দরবন “চর কুকরিমুকরি“ (শেষ পর্ব)

ইয়াছিনুল ইমন, ভোলা প্রতিনিধিঃ

মিনি সুন্দরবন “চর কুকরি মুকরি” (১ম পর্ব)
মিনি সুন্দরবন “চর কুকরিমুকরি” (২য় পর্ব)

চর কুকরিমুকরি কোথায় থাকবেনঃ
আপনি  ইচ্ছা করলে চর কুকরিমুকরিতে ক্যাম্পিং করতে পারবেন। এছাড়া বন বিভাগ, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এফডিএ), কোস্ট ট্রাস্ট এবং ইউনিয়ন পরিষদের রেস্ট হাউসে অনুমতি নিয়ে রাত্রি যাপন করতে পারবেন। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এফডিএ) এর রেস্ট হাউজ ভাড়া ৩০০ টাকা, কোস্টাল ফরেস্ট ডেভেলপমেন্ট কাম রেস্ট হাউজ (বনবিভাগের) ভাড়া-সিঙ্গেল রুম-২০০০ টাকা, ডবল রুম-৪০০০ টাকা। বনবিভাগের রেস্ট হাউজে থাকতে চাইলে আগেই জানিয়ে যাওয়া ভালো। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা(এফডিএ)। যোগাযোগ – ০১৭৪৬-৭৬৫৯৫৯। চর কুকরি মুকরি রেস্ট হাউজের যোগাযোগ নাম্বার ০১৭৩৯-৯০৮০১৩।

চর কুকরিমুকরিতে কোথায় খাবেনঃ
বন বিভাগ, কোস্ট ট্রাস্ট এবং ইউনিয়ন পরিষদের রেস্ট হাউস কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করলে এরা খাবারের ব্যবস্থা করে থাকে। এছাড়া কুকরি বাজারে হোটেল হানিফ (হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট) রয়েছে। এখানে থাকা এবং খাওয়ার সু ব্যবস্থা রয়েছে।

চর কুকরিমুকরিতে দর্শনীয় স্থানঃ
পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে এখানে একের পর এক স্থাপনা গড়ে উঠছে। এরই মধ্যে পাখি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র, ওয়াচ টাওয়ার স্থাপন হয়েছে। নির্মিত হয়েছে ফাইভস্টার মানের বনবিভাগের কোস্টাল ফরেস্ট ডেভেলপমেন্ট কাম রেস্ট হাউজ (একটি টুরিস্ট হোটেল)। দর্শনীয় স্থান হিসেবে রয়েছে নারিকেল বাগান, বালুর ধুম, লাল কাঁকড়া, সাগর পাড়ে প্রাকৃতিকভাবে গড়ে ওঠা সমুদ্রসৈকত ও সাগরের গর্জন। এছাড়া কুকরীর বিভিন্ন বাঁকে বাঁকে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের নয়নাভিরাম দৃশ্য দেখা যাবে।

অন্যান্যঃ
পল্লীকর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন(পিকেএসএফ) এর অর্থায়নে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এফডিএ) কর্তৃক চর কুকরি মুকরিতে কমিউনিটি ভিত্তিক  ইকো-ট্যুরিজম উন্নয়নশীর্ষক ভ্যালু চেইন উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় নির্মিত হয়েছে পরিবেশ বান্ধব আধুনিক পর্যটন সরঞ্জামাদি। নির্মিত হয়েছে একাধিক টয়লেট এন্ড বাথরুম সার্ভিস। বিশুদ্ধ খাবার পানির জন্য বসানো হয়েছে ২টি টিউব অয়েল। শতভাগ নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছেন ইকো-ট্যুরিজম উন্নয়নশীর্ষক ভ্যালু চেইন উন্নয়ন প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক জনাব মোঃআবু ইব্রাহিম।

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা (এফডিএ) এর বিজনেস ডেভেলপমেন্ট অফিসার মোঃআনিচুর রহমান বলেন, ‘চর কুকরী-মুকরী ২য়  সুন্দরবন। এখানে হরিণ, বানর, ভালুকসহ নানা প্রজাতির বৈচিত্র্যময় প্রাণী ও বৃক্ষরাজি রয়েছে। বন মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে একটি ট্যুরিস্ট হোটেল নির্মাণ করেছে। আমরা পল্লীকর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন(পিকেএসএফ) এর অর্থায়নে কমিউনিটি ভিত্তিক ইকো-ট্যুরিজম উন্নয়নশীর্ষক ভ্যালু চেইন উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ করছি। এখন শুধু যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন হলেই দেশের মধ্যে চর কুকরী-মুকরী অন্যতম একটি পর্যটন কেন্দ্র হয়ে উঠবে।’

নিউজনাউ/এবি/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ