করোনাকালে মন ভালো রাখতে হলে

নিউজনাউ ডেস্ক:

মনে মনে সারাক্ষণই ভাবছেন ঘরে আর কতক্ষণ ঘরে আটকা থাকা যায়, করোনাভাইরাস কবে বিদায় নেবে। টেলিভিশন, পত্রিকা খুললেই সারাবিশ্বের করোনার খবর। আজ এতো মৃত্যু, এতো আক্রান্ত। কোয়ারেন্টিন, আইসোলেশন, লকডাউন- কথাগুলো আমাদের একেবারে গ্রাস করে নিয়েছে।

করোনা আতঙ্ক আর অনিশ্চয়তায় মানসিকভাবে আমরা বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছি। অজানা আশঙ্কা উদ্বিগ্নতা ছাড়াও রোগভীতি, নিদ্রাহীনতা, ডিপ্রেসন, আতঙ্কগ্রস্ততা, মৃত্যুভীতি ইত্যাদি কারণে মন খারাপ হতে পারে।এই অবস্থায় মনটাকে ভালো রাখার দায়িত্বও তো আপনারই। দেখুন সেটা কীভাবে-

১. শুধু আমিই নই, অনেকেই এই পরিস্থিতির শিকার। এটি মেনে নিতে পারলে মনের অস্থিরতা কমে যাবে। এটা আপনার জন্য অনেক বড় একটা শান্তনা।

২. শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যায়াম করতে পারেন। সোজা হয়ে চেয়ার-টুল-মোড়ার ওপরে কিংবা মেঝেতে বসে খুব ধীরগতিতে দীর্ঘশ্বাস নেয়া, আর ধরে না-রেখে খুব ধীরে প্রশ্বাস ছাড়া। অস্থিরতা বা টেনশন অনুভব করলে কিছুক্ষণ দুচোখ বন্ধ করতে পারলে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা কিছুটা কমবে।

৩. ফোন বা সোশ্যাল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে প্রিয়জন বা বন্ধুর কাছে মনের কথা বলতে পারেন। তাতে জমে থাকা অনুভূতির তীব্রতা কিছুটা কমে ভার কিছুটা হলেও হালকা হয়।

৪. টিভি বা সোশ্যাল নেটওয়ার্কের সামনে দীর্ঘক্ষণ বসে করোনা সংক্রমণ নিয়ে খবর শুনতে বা দেখতে থাকলে মন খারাপ হতে পারে। বাড়তে পারে দুশ্চিন্তা-উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা-ভয় ও আশঙ্কার মাত্রা। করোনাসংক্রান্ত খবর সম্পর্কে সচেতন থাকতে দিনে দুই থেকে তিন বার টিভি দেখলেই হয়।

৫. ঘরে থাকার একঘেয়েমি কাটাতে বই পড়ুন। এতে করে নিজের মধ্যকার সুপ্ত সৃজনশীল সত্তাকেও খুঁজে নেওয়া যায়। হাতে তুলে নিতে পারি রঙতুলি। সবাই মিলে রান্নাবান্না করবেন, আড্ডা দেবেন, দেখবেন কোয়ালিটি টাইম ভালোই কাটছে। ফোনে, ইন্টারনেটে আত্মীয়, বন্ধু, প্রিয়জনদের খোঁজখবর নিন নিয়মিত।

৬. ঘরে একসঙ্গে সারাদিন থাকার ফলে বিভিন্ন কারণে পরিবারের কাছের মানুষের মধ্যে খুনসুটি হতে পারে। সেক্ষেত্রে পারস্পরিক দোষারোপ না করে অন্যের অনুভূতি, সমস্যা, পরিস্থিতিকে তার জায়গা থেকে একটু বোঝার চেষ্টা করতে হবে। তা হলেই ঘরবন্দি থাকা শত প্রতিকূলতার মধ্যেও মধুর হয়ে উঠতে পারে।

নিউজ নাউ/এসএইচ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...