সড়ক দুর্ঘটনার কবলে অভিনেত্রী শাহনাজ খুশি

নিজস্ব প্রতিবেদক: সড়ক দুর্ঘটনার শিকার অ‌ভি‌নেত্রী শাহনাজ খুশি। টানা চার মাস পর শুটিংয়ে ফিরেই ভয়ংকর সড়ক দুর্ঘটনায় পড়েন তি‌নি। শরীরে বড় কোনও আঘাত না লাগলেও ট্রমার মধ্যে রয়েছেন। তার কানে প্রতিনিয়ত বাজছে কাভার্ডভ্যান চালকের কথা, ‘মানুষ মাইরালায় ট্যাহা লাগে না, বাঁইচ্যা আছে- তাও ট্যাহা লাগবো!’

গতকাল অর্থাৎ ১৭ জুলাই তার স্বামী নাট্যকার-অভিনেতা বৃন্দাবন দাসের ‘নসু ভিলেন-৩’-এর শুটিংয়ে পূবাইলে যাওয়ার সময় এই ঘটনা ঘটে। এতে খুশিকে বহনকারী প্রাইভেটকার দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। আহত অভিনেত্রী ও তার গাড়িচালককে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাসায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

জানা যায়, চলন্ত কাভার্ডভ্যান একপাশে সজোরে আঘাত করলে দুমড়ে-মুচড়ে যায় এই অভিনেত্রীর গাড়ি। ঘটনাটি ঘটে টঙ্গীর মাজুখাল ও মীরের বাজারের মাঝামাঝি একটি স্থানে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খুশীর স্বামী নাট্যকার বৃন্দাবন দাস।

তিনি বলেন, ‘শুটিংয়ের দ্বিতীয় দিন মা‌নে ১৭ জুলাই ঘটনা এটা। ভ্যানের মূল চালক ঘুমিয়ে ছিল। গা‌ড়ি‌টি চালাচ্ছিল হেলপার। তার বয়স ১৬/১৭। হ‌বে। ড্রাইভার যিনি, উনিও তাই। গুরুত্বপূর্ণ কথা হলো ড্রাইভারের কোনো লাইসেন্স নাই!!! এমন নাকি চলে, কোনো সমস্যা হয় না! তা‌দের বক্তব্য ছি‌লো এমনটাই।

শাহনাজ খু‌শি ব‌লেন, আমি আসলে পুরা সেন্সে ছিলাম না, কিছু কিছু কথা আমি ভুলতে পারছি না তাছাড়া তারা নেশাগ্রস্ত ছিল এবং খুবই আক্রমণাত্মক। তাদের কিছু কিছু কথা আমি ভুলতে পারছি না। ওরা মানুষ মেরে ফেলতেও দ্বিধাবোধ করে না। আমি আক্রান্ত হওয়ার কিছুক্ষণ পর পূবাইল পুলিশ, আমার শুটিংয়ের ছেলেরা ও বাসার মানুষ সবাই চলে আসে। একজন ক্ষতিপূরণের কথা বলায় কাভার্ড ড্রাইভার বলে উঠে ‘মানুষ মাইরালায় ট্যাহা লাগে না, বাঁইচ্যা আছে- তাও ট্যাহা লাগবো। সামনের টেম্পোর ছয় জনরে বাঁচান্যার লাই ২ জনরে মাইরা দেয়া কুনু বিষয় না।’ পুরো ঘটনাটা বড় একটা ট্রমার মতো।’

এদিকে ১৮ জুলাই সকাল থেকে এমন ঘটনা খবরে ও অন্তর্জালে প্রকাশের পর তীব্র প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন বিভিন্ন স্তরের শিল্পী-কুশলী ও দর্শকরা। শাহনাজ খুশির পারিবারিক বন্ধু এবং দেশের অন্যতম অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর প্রতিক্রিয়াটি ছিল চোখে লাগার মতো। তিনি তার ফেসবুক দেয়ালে স্পষ্ট ভাষায় স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি চেয়েছেন কর্তৃপক্ষের কাছে।

তিনি বলেন, ‘এরকম অরক্ষিত পথ আমাদের পাড়ি দিতে হয় প্রতিদিন। প্রশ্ন একটাই- অনিরাপদ এই পথের দায় কার? অধিকাংশ ড্রাইভারের এরকম নিয়ন্ত্রণহীন গাড়ি চালানো, আইন অমান্য করা, অসচেতনতা এবং দায়িত্ব জ্ঞানহীনতায় প্রতিদিন কেড়ে নিচ্ছে অনেক প্রাণ। এভাবে আর কত? এই অমানুষগুলোর শাস্তি কি আমরা আর আশা করবো না! আমি আর কিছু চাই না, শুধু স্বাভাবিক মৃত্যুর নিশ্চয়তা চাই।’

এরপর দুর্ঘটনায় আহত বন্ধু শাহনাজ খুশিকে উদ্দেশ করে এই অভিনেতা বলেন, ‘ভালো থাক খুশি বন্ধু। সাহসগুলো শুধু সঞ্চয়ে রাখ। এবার বেঁচে গেলি। আয়, আমরা সবাই ভবিষ্যতের অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত হই।’

অ‌ভি‌নেত্রী শাহনাজ খু‌শি তার ফেইসবুকে এমন দূর্ঘটনার বিচার চে‌য়ে এক‌টি পোস্ট শেয়ার ক‌রেন। সেখানে লেখা, ‘আমি আমার দেশের প্রতি/আইনের প্রতি শতভাগ শ্রদ্ধা এবং দায়িত্ববান। আমার এবং আমার পরিবারের দ্বারা দেশের বিন্দু পরিমাণ সম্মান ক্ষুন্ন হয় নাই ,বরং দেশের মর্যাদা রক্ষায় আমরা বদ্ধ পরিকর। আমি শুধু আমার জীবনের নিরাপত্তা চাই মাননীয়! জীবনের এত যুদ্ধ, এত শিক্ষার পর, একজন অশিক্ষিত নেশাগ্রস্ত লাইসেন্সবিহীন, ড্রাইভারের হাতে জীবন দিতে রাজী নই। দয়া করে আইন সংশোধন করে, আমাদের জীবনকে নিরাপদ করুন। আমি আমার সন্তানকে দায়িত্বপূর্ণ নাগরিক করবার দায়িত্বভার নিষ্ঠার সাথে পালন করছি। আপনারা আমাদের জীবন/পথকে নিরাপদ করুন মহামান্য!! আমার পরিবার এবং আমি, দাফনের জন্য টাকা আর ক্ষতিপূরণের কয়েক লাখ টাকা চাই না। আমরা ভর্তা ভাত খেয়ে, একে অপরের জীবিত সুস্থ সান্নিধ্যে বাঁচতে চাই।’

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...