মানিকগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মানিকগঞ্জে পদ্মা ও যমুনার পানি কিছুটা কমলেও শাখা নদীর পানি অব্যাহত হারে বেড়েই চলছে ,পানিবন্দী হয়ে পড়েছে জেলার অগণিত মানুষ । শিবালয়, ঘির ,দৌলতপুর ,  হরিরামপুর,সাটুরিয়া ও সদর উপজেলার বন্যা পরিস্থিতি  আরো অবনতি হচ্ছে।

সেই সাথে জেলা শহরের আশে পাশের আরো নতুন নতুন এলাকাও প্লাবিত হচ্ছে। চরাঞ্চলে গবাদিপশু নিয়ে বানভাসি মানুষজন নিদারুণ কষ্টে দিন যাপন করছেন।

এখানে বিশুদ্ধ পানি ও রান্না করা খাবারের পাশাপাশি গোখাদ্যের সংকট দেখা দিয়েছে। পানিবন্দী হাজার হাজার মানুষের মধ্যে অনেকেই নিজদের ঘরবাড়ি ছেড়ে আশ্রয় নিয়েছেন উচুস্থানে অথবা সরকারি আশ্রয়কেন্দ্রে।

মানিকগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানি পরিমাপক (গেজ রিডার) ফারুক আহমেদ নিউজনাউকে জানান ,আরিচা পয়েন্টে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ সেন্টিমিটার কমে এখন বিপদ সীমার ৭০ সেন্টিমিটার উপরি দয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ।

জেলা বন্যা নিয়ন্ত্রণ কন্টলরুমের তথ্যানুযায়ী মানিকগঞ্জে প্রায় ২৩১ বর্গকিলোমিটার এলাকা বন্যার কারণে এ পর্যন্ত প্লাবিত হয়েছে। এ অঞ্চলের পাঁচটি উপজেলার প্রায় ৭২৯ টি পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
অপরদিকে বন্যার ফলে জেলার পাঁচটি উপজেলার নদী তীরবর্তী এলাকার প্রায় ৯ হাজার ১৯৬ হেক্টর ফসলি জমি বন্যার পানিতে সম্পূর্ণ তলিয়ে গেছে। ৫,৯৯৫ মিটার জমি ভাঙনে বিলীন হয়েছে।

তার মধ্যে দৌলতপুরে যমুনা নদী তীরবর্তী এলাকায় ২৩৫০ মিটার, শিবালয়ে পদ্মা-যমুনা তীরবর্তী এলাকায় ১৭৫০ মিটার, হরিরামপুরে পদ্মা নদী তীরবর্তী ৫৯৫ মিটার, সাটুরিয়ায় ধলেশ্বরী নদী তীরবর্তী ১১০০ মিটার ও ঘির উপজেলায় প্রায় ২০০ মিটার এলাকা রয়েছে।

এপর্যন্ত গৃহীত ত্রাণ সহায়তার মধ্যে রয়েছে ১৩০ মে:টন চাল, ১৭০০ প্যাকেট শুকনা খাবার, ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার শিশুখাদ্য এবং ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার গবাদি পশুর খাদ্য ।
নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...