ভারতে পাচারকালে ৪৬০ কেজি ইলিশ জব্দ

বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের শার্শা সীমান্ত থেকে ভারতে পাচারের সময় ৪৬০কেজি ইলিশ মাছ আটক করেছে বিজিবি।

মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) বিকালে ইলিশ মাছের চালানটি জব্দ করা হয়। বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে আগে থেকে পাচারকারীরা পালিয়ে যায়।

বিজিবির অভিযান থাকলেও পুলিশের অভিযান নেই বলে অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।

২১ বিজিবি গোগা ক্যাম্প থেকে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভারতে পাচারের সময় গোগা সীমান্ত থেকে ইলিশ মাছ আটক করা হয়। এ সময় পাচারকারীকে আটক করা সম্ভব হয়নি। আটককৃত মাছ গুলো গোগা গ্রামের একটি এতিম খানায় দেওয়া হয়েছে।

খুলনা-২১বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে.কর্নেল মঞ্জুর-ই-এলাহি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভারতে পাচারের সময় গোগা সীমান্ত এলাকা থেকে ৪৬০ কেজি ইলিশ মাছ আটক করা হয়। এ সময় পাচারকারীকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

এদিকে গোগা এলাকার অনেকেই জানিয়েছেন, চোরাকারবারি দীর্ঘদিন যাবত ভারত থেকে ফেন্সিডিল, মদ, গাঁজা ও রুপা নিয়ে আসছে। আর বাংলাদেশ থেকে সোনা, ডলার ও ইলিশ মাছ পাচার করছে।

বিজিবি মাঝে মধ্যে অভিযান চালিয়ে কিছু চালান আটক করলেও পুলিশ রয়েছে নীরব ভূমিকায়।

তারা আরো বলেন, গোগা সীমান্ত এলাকাটা বাগআঁচড়া ফাঁড়ির অধীনে এই ফাঁড়ির দায়িত্বে রয়েছেন উত্তম কুমার বিশ্বাস। তিনি যোগদান করার পর থেকে মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে চুক্তি থাকার কারণে সীমান্ত দিয়ে দিনে রাতে আসছে মাদকদ্রব্য।

এ বিষয়ে রুদ্রপুর বাজারে এক ডাক্তার জানান, বিজিবির অভিযান টের পাওয়া যায় কিন্তু ফাঁড়ির পুলিশ আসে চাঁদা তুলতে। মাদক ব্যবসায়ীরা ভারত থেকে মাদকদ্রব্য এনে প্রথমে সীমান্তবর্তী গ্রাম গুলোতে জমা করে রাখে। পরে সুযোগ বুঝে দেশের বিভিন্ন জেলায় সাপ্লাই করে থাকে।

বাগঁআচড়া ফাঁড়ির ইনচার্জ উত্তম কুমার বিশ্বাস আসার পর কোনো মাদকদ্রব্য জমা করা লাগে না। কারণ পুলিশের একটা ভয় ছিল সেটা বর্তমানে তিনি আসার পর নেই। কারণ তার সাথে রয়েছে চুক্তি। এমন কি সে নিজেও মাদক ব্যবসায়ীদের মাদকদ্রব্য বিভিন্ন জেলায় পাঠাতে সহযোগীতা করে থাকে বলে একাধিক সূত্র জানিয়েছেন।

নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
Loading...