বান্দরবানে যানবাহন চলাচল শুরু

বান্দরবান প্রতিনিধি: দীর্ঘ পঁচিশ দিন পর বান্দরবান রুটে সবধরনের যানবাহন চলাচল শুরু হয়েছে।

সোমবার (২০ জুলাই) সকালে ৬টা থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক বান্দরবান জেলার সঙ্গে ঢাকা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজারসহ অভ্যন্তরীণ সবগুলো রুটে সবধরনের যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

দুইটা সিটে একজন যাত্রী নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পর্যটন শহর বান্দরবান ছেড়ে গেছে দূর পাল্লার যাত্রীবাহী বাসগুলো। সেক্ষেত্রে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে ডাবল সিটের ভাড়াও।

এদিকে দীর্ঘদিন পর যানবাহন চলাচল শুরু হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে পরিবহণ শ্রমিক-মালিকদের মধ্যে। জেলা শহরেও শ্রমজীবী শ্রমিকেরা বেরিয়েছেন যানবাহন নিয়ে। ফাঁকা সড়কগুলোতে দীর্ঘদিন পর যানবাহনের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে প্রথমদিনেই। তবে বাসষ্ট্যান্ডগুলোতে যাত্রীদের খুব একটা ভিড় দেখা যায়নি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বান্দরবানের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. শামীম হোসেন নিউজনাউকে জানান, করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা মোতাবেক রেড জোন ঘোষিত বান্দরবানে ২১ দিনের লকডাউন শেষে খুলে দেয়া হয়েছিল দোকানপাট। কিন্তু আরও চারদিন পর্যবেক্ষণের পর সোমবার থেকে বান্দরবানে সবগুলো রুটে সবধরনের যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে। তবে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি এবং সরকারি নির্দেশনা। তবে ঈদের আগে দর্শনীয় পর্যটন স্পট এবং আবাসিক হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট, গেস্ট হাউজ খুলে দেয়ার আপাতত সম্ভাবনা নেই।

এদিকে লকডাউন শেষে হাট-বাজারের দোকানপাট এবং যানবাহন সবগুলো খুলে দিলেও মাছ-মাংস বাজার এবং রেস্টুরেন্ট গুলো খুলে না দেয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন ব্যবসায়ীরা।

রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী মালিক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক রফিকুল ইসলাম ও মাছ ব্যবসায়ী সমিতির নেতা মো. তাহের বলেন, ‘যানবাহন, হাট-বাজারের দোকানপাট খুলে দেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে রেস্টুরেন্ট, মাছ-মাংসর বাজারগুলোও খুলে দেয়া যেত। প্রশাসনসহ দায়িত্বশীল সরকারি সংস্থাগুলোকে নজর দেয়ার দাবী জানাচ্ছি।’

স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, সোমবার ১৯টি নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে কোনো আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হননি। জেলায় এ পর্যন্ত ৫০৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের।

নিউজনাউ/এবি/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...