টানা ‍বৃষ্টিতে রংপুর নগরীতে জলজট

রংপুর ব্যুরো: মাত্র ১৬ ঘন্টার বৃষ্টিতে জলজটে নাকাল রংপুর নগরবাসী। সড়ক-মহাসড়ক, পাড়া-মহল্লাসহ বিভিন্ন নিচু এলাকায় হাটু পানিতে ডুবে আছে। ঐতিহাসিক শ্যামাসুন্দরী খালের পানি ঢুকে পরেছে অনেক স্থানে। এতে ভোগান্তিতে পরেছে লাখো মানুষ।

রবিবার (১৯ জুলাই) ভোর চার টা থেকে মৌসুমি বায়ুচাপের প্রভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানের মতো রংপুরেও দিনভর একটানা ভারি কখনও বা মাঝারি বৃষ্টিপাত হয়। গত ১৬ ঘন্টায় ১শ’ ৯৮ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করেছে স্থানীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর। আর এতেই নগরির ১৭ ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকা পানিতে ডুবে গেছে। সিটি করপোরেশন এলাকার প্রায় ৩০ নিম্নাঞ্চল গ্রামগুলোতে বাড়ির উঠানে হাটু পানি জমেছে। অনেক কাচাপাকা সড়ক পানিতে ডুবে গেছে। এতে নগরবাসীর স্বাভাবিক চলাচলে বাঁধার সম্মুখীন হচ্ছেন। হুমকীর মুখে পরেছে প্রায় শতাধিক মাছের খামারও। অপরিকল্পিতভাবে নগরায়ন আর উন্নয়নের নামে রাস্তা-ঘাট খুড়ে একাকা হওয়ায় পানির স্বাভাবিক প্রবাহ বাঁধাগ্রস্ত হচ্ছে বলে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

রংপুর মহানগর সুজনের সাধারন সম্পাদক ফকরুল আনাম বেঞ্জু নিউজনাউকে জানিয়েছেন, নগর উন্নয়নের অজুহাতে গত তিন বছর ধরে সিটি করপোরেশন এলাকার এমন কোন রাস্তাঘাট বাদ পরেনি মাটি খোড়াখুড়িতে। নগর পিতার পরিকল্পনাহীন কাজের জন্য বর্ষায় সাধারণ মানুষকে খেসারত দিতে হচ্ছে। পরিকল্পিত নগর গঠনে এ নিয়ে তিনি সচেতন নাগরিকের ব্যানারে সিটি মেয়রকে অনেকবার তাগাদা দিলেও কোন মূল্যায়ন হয়নি তাদের চিন্তার। দ্রুত সময়ে জলজট মুক্ত না হলে সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে রাস্তায় নামার হুমকিও দেন তিনি।

এনিয়ে সিটি মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা নিউজনাউকে জানিয়েছেন, তিনি নির্বাচিত হবার পর থেকেই নানা সমস্যা মোকাবিলা করতে হয়েছে তাকে। এক বছর কোন উন্নয়নমূলক কাজ করতে পারেননি তিনি। গেল ১৮-১৯ ও ২০ অর্থ বছর থেকে নতুন করে বেশ কিছু উন্নয়নমূলক প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। রাস্তা-ঘাট, ব্রীজ-কালর্ভাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ সরকারি, বেসিরকারি অর্থায়নের প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা ব্যায়ে বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। করোনা দুর্যোগ না হলে বর্ষার আগেই ৭০ শতাংশ কাজ বাস্তবায়ন হতো বলে তিনি মনে করেন। বৈশ্বিক ও প্রাকৃতিক এই দূযোর্গ মোকাবেলায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

নিউজনাউ/এসএ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...