টমটমের ভাড়া নিয়ে হবিগঞ্জ শহরে রণক্ষেত্র

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : টমটমের ভাড়া নিয়ে দুই দলের সংঘর্ষে হবিগঞ্জ শহরের শায়েস্তানগর বাজার এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে।

এতে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। রবিবার (১৮ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষ চলে।

এ সময় আশপাশের দোকান পাট বন্ধ হয়ে যায়, তিন ঘণ্টা শায়েস্তানগরসহ আশপাশের এলাকার বিদ্যুৎ চলে যায়।

ফলে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। সংঘর্ষ চলাকালে হবিগঞ্জ শহরের সাথে শায়েস্তাগঞ্জসহ বিভিন্ন উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রায় ২ ঘণ্টা বন্ধ থাকে। খবর পেয়ে সদর থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়।

একপর্যায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুই ঘণ্টা আপ্রাণ চেষ্টার করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শায়েস্তানগর এলাকার আব্দুল আওয়াল শহরের আরডি হল এলাকা থেকে টমটমে উঠে তার স্ত্রীকে নিয়ে শায়েস্তানগর পয়েন্টে নামে এবং ১০ টাকা দেন। এ সময় বহুলা এলাকার টমটম চালক শাহ আলম ২০ টাকা দাবি করে।

এ নিয়ে দুইজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে টমটম চালক ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে তার উপর হামলা চালায়৷

পরে শায়েস্তানগর ও বহুলা এলাকার লোকজনরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষ জড়িয়ে পরে৷

এদিকে শহরের যাত্রীদের অভিযোগ, ইদানিং টমটম চালকরা হবিগঞ্জ শহরে ভাড়ার নামে নৈরাজ্য শুরু করেছে।

প্রায়ই টমটমের ৫ টাকা ভাড়ার স্থলে মনগড়া মতো ১০ টাকা নেয়ায় মারামারি হচ্ছে। একাধিকবার মৌখিক অভিযোগ জানানোর পরও এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি পৌরকর্তৃপক্ষ।

সুশীল সমাজ ও সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে বারবার পৌর মেয়র মিজানুর রহমানকে বলার পরও তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে কৌশলে এড়িয়ে যান।

যাত্রীদের আরো অভিযোগ, সরকার সকল গণপরিবহণে পূর্বের ভাড়া বহাল রাখার ঘোষণা দিলেও হবিগঞ্জ টমটম মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ নামের একটি সংগঠন গড়ে তুলে কতিপয় ব্যক্তি। যারা পৌরসভার ভেতরে যাত্রী উঠানামার ক্ষেত্রে আগের ৫টাকা ভাড়ার স্থলে নিজেদের মনগড়া মতো ১০ টাকা করে। আর এ নিয়েই প্রতিদিনই চালকদের সাথে কথাকাটাকাটি ও মারামারি হয়।

এ নিয়ে একাধিকবার পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হলেও রহস্যজনক কারণে পৌর মেয়র নিরব।
সরেজমিনে দেখা যায়, শহরের বাসা বাড়ির গৃহবধূ ও নারী যাত্রীরা ভাড়া নিয়ে কথা বললেই চরম বিব্রতকর অবস্থায় পড়ছেন।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন হবিগঞ্জ শহরবাসী।

এ বিষয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মাসুক আলী জানান, শুনেছি টমটমের ভাড়া নিয়ে সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ফের সংঘর্ষ এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে ওই এলাকায়।

নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...