চোখের জলে ‘সাময়িক বিদায়’ ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়ার

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামে করোনা চিকিৎসায় দেশের প্রথম ফিল্ড হাসপাতাল তৈরি করে মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করা ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া এবং তার টিম নিলেন ‘সাময়িক বিরতি’। চট্টগ্রামে করোনার প্রকোপ কিছুটা কমে আসায় এই তাদের এই সাময়িক বিরতি। তবে দ্রুতই একই অবকাঠামোতে ৬০ শয্যা বিশিষ্ট আধুনিক ও ইউনিক হাসপাতাল নিয়ে ফিরে আসার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া।

রোববার (৩০ আগস্ট) চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতালের চিকিৎসায় ‘সাময়িক বিরতি’ টানা উপলক্ষে হাসপাতাল প্রাঙ্গণে দেওয়া বক্তব্যে এমনটাই জানিয়েছেন হাসপাতালটির প্রধান উদ্যোক্তা ও সিইও ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া।

এসময় সেখানে তৈরি হয় এক আবেগঘন পরিবেশের। বক্তৃতা দিতে গিয়ে নিজে কেঁদে উপস্থিত সকলকে অশ্রুসিক্ত করেছেন ডা. বিদ্যুৎ। তিনি এই হাসপাতাল গড়ে তোলার পিছেন সকলের অবদান বিনম্র চিত্তে স্মরণ করেন। হাসপাতালে কর্মরত সকল চিকিৎসক, নার্স, ভোলান্টিয়ারসহ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

হাসপাতালের স্বেচ্ছাসেবকদের প্রত্যেকেই তিনি মানবতার পিলারের সাথে তুলনা করেছেন। তিনি বলেন, স্বেচ্ছাসেবকদের উপর ভর করেই মানবিকতায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছে এই হাসপাতাল। তাদের ছাড়া এই হাসপাতালকে এগিয়ে নেওয়া ছিল একেবারে অসম্ভব ব্যাপার। কাজেই এই হাসপাতালের সমস্ত কৃতিত্ব আমি তাদেরকে উৎসর্গ করতে চাই।

তিনি বলেন, আজকে আমাদের এই পথ তৈরিতে কিংবা মানবিকতার ‘মাইলফলক’ স্পর্শে নাভানা গ্রুপসহ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যারা আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন, সাধ্যমতো সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন সেইসব মানুষদের আজকের এই মাহেন্দ্রক্ষণে কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করছি।

অনুষ্ঠানে ভিডিওকলে যুক্ত হয়ে নাভানা গ্রুপের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম ঘোষণা দেন এই ব্যবস্থাপনা ও নেতৃত্বের হাত ধরে অচিরেই এখানে একটি আনপেরালাল সেবার হাসপাতাল গড়ে তোলা হবে।

এসময় সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন একুশে পত্রিকার সম্পাদক আজাদ তালুকদার, চসিকের সাবেমকমিশনার এডভোকেট রেহানা বেগম রানুসহ হাসপাতালের চিকিৎসকগণ।

উল্লেখ্য, করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে দীর্ঘ চার মাস চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতালে সেবা নিয়েছেন অন্তত ১৬শ রোগী। এর মধ্যে বিভিন্ন সময় সেখানে ভর্তি ছিলেন ২৮৩ জন। যার ৯০ শতাংশই ছিল রোগী। করোনাকালে চট্টগ্রামে অবস্থানরত বিদেশীদের কাছেও এই হাসপাতাল হয়ে উঠেছিল আস্তার প্রতীক।

ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়ার উদ্যোগে ও নাভানা গ্রুপ এর সহযোগিতায় প্রতিষ্ঠিত হয় এই হাসপাতালটি পরিচালিত হতো সম্পূর্ণ জনগণের আর্থিক সহায়তায়।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...