গোপালগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

শখে জাবেরুল ইসলাম,গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জে অব্যাহত বর্ষণে সব নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে জেলার ৫ উপজেলার ৪৬ টি ইউনিয়নের ৩২৫ গ্রামের বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে।

জেলার ১১৪টি বিলের পানি নদীর তুলনায় অস্বাভাবিক হারে বেড়ে নিম্নাঞ্চলের নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী ২০হাজার ৩৩৯ টি পরিবারের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।

এ পর্যন্ত ১৬৬৫ পরিবার ১২০ আশ্রয়ণ কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে। ছড়িয়ে পড়েছে পানি বাহিত রোগ।

পশু খাদ্যের সংকট চরম আকার ধারণ করেছে। পানিতে এসব এলাকার চলাচলের রাস্তা, মাছ চাষের পুকুর, সবজি, আউশধান ও আমনের বীজতলা ডুবে গেছে।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা এস.এম রেখা রানী হালদার নিউজনাউকে জানিয়েছেন, জেলার ৫ উপজেলার ৪৬ টি ইউনিয়নের ৩২৫ টি গ্রামের ২০হাজার ৩৩৯ টি পরিবার পানিবন্দী।

১৬৬৫ পরিবার ১২০ টি আশ্রয়ণ কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছেন। আরো ১৩০ টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বন্যার্তদের মাঝে ২১০ মেট্রিক টন চাল, নগদ ৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা ও ৪ হাজার প্যাকেট শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

গোপালগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণের ডিডি ড. অরবিন্দু কুমার রায় ও জেলা মৎস্য কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ বৈরাগী নিউজনাউকে জানিয়েছেন, কৃষি সেক্টরে অন্তত ২০ কোটি ও মৎস্য সেক্টরে ৭০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

গোপালগঞ্জ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক চন্দ্র তালুকদার নিউজনাউকে জানান, বন্যার্তদের মাঝে ৫ লাখ পানি বিশুদ্ধ করণ ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়েছে।

গোপালগঞ্জ পানি উন্নয়নবোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী বিশ্বজিৎ বৈদ্য নিউজনাউকে জানিয়েছে, জেলার সব নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে এখনো বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে । তবে বিলের পানির লেভেল নদীর পানি থেকে অনেক বেশি। এ কারণে সেখানে বন্যা পরিস্থিতি প্রকট আকার ধারণ করেছে।

নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
Loading...