করোনা সন্দেহে একই পরিবারের ৫ জন হাসপাতালে

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:
ঠাকুরগাঁওয়ে করোনাভাইরাসে একই পরিবারের ৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

তাদের মাঝে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার প্রাথমিক লক্ষণ সমূহ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর।

ঠাকুরগাঁওয়ে করোনাভাইরাস পরীক্ষার ব্যবস্থা না থাকায় তাদের সকলকে রংপুর মেডিকেলে স্থানান্তর করা হয়েছে।

অসুস্থরা হলেন সদর উপজেলার চিলারং ইউনিয়নের ভেলাজান নদীপাড়ার বাসিন্দা (৩০) তার স্ত্রী, আড়াই বছরের কন্যা সন্তান ও ছোট ভাই এবং তার স্ত্রী।

এদের মধ্যে একজন (৩০) ঢাকায় রেস্তোরা ব্যবসা করতেন। গত ১৩ মার্চ ঢাকা থেকে মাদারীপুর পিকনিকে গিয়েছিলাম। সেখানে অনেক মানুষের সংস্পর্শে ছিলেন।

পিকনিক থেকে ফেরার পরই জ্বর শুরু হয়। জ্বর নিয়ে কয়েকদিন আগে ট্রেন যোগে ঢাকা থেকে ঠাকুরগাঁওয়ে আসেন তিনি। বাড়িতে আসার পর তার জ্বর বাড়তে থাকে, সেই সাথে শুরু হয় শ্বাসকষ্ট ও পাতলা পায়খানা। একই সমস্যা দেখা দেয় তার স্ত্রী ও শিশু বাচ্চার।

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. রকিবুল আলম জানান, ‘সংবাদ পেয়ে শনিবার (২৮ মার্চ) বিকেল সাড়ে পাঁচটায় হাসপাতালের এম্বুলেন্স যোগে রোগীদের বাড়ি থেকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। রোগীদের বর্ণনা ও লক্ষণ দেখে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে তারা এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর। যেহেতু এখানে করোনাভাইরাস শনাক্তের ব্যবস্থা নেই তাই আইইডিসিআর এর পরামর্শ অনুযায়ী সন্ধ্যায় তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজে স্থানান্তর করা হয়েছে। সেখানে এ রোগ নির্ণয়ের ব্যবস্থা রয়েছে।’

নিউজনাউ/এবি/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...