আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে জাজিরা রণক্ষেত্র

শরীযতপুর প্রতিনিধি: দলীয় কোন্দলের জেরে স্থানীয় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শরীয়তপুরের জাজিরায় উপজেলায় আওয়ামীলীগের দুগ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা দাওয়া ও ইট পাটকেল নিক্ষেপ এবং বোমার আঘাতে অনন্ত ২৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষেই ২ শতাধিক বোমার বিস্ফোরন ঘটায়।

এমন তথ্য জানিয়ে জাজিরা থানার এস আই দেলোয়ার হোসেন বলনে, আহতদের জাজিরা উপজেলা স্বস্থ্য কমপ্লেক্স, শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। এ ঘটনায় ১ শত ১৭ জনকে আসামী করে জাজিরা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

প্রত্যাক্ষদর্শী ও জাজিরা থানার এস আই দেলোয়ার হোসেন আরও জানান, সোমবার সকাল ৮ টায় শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার বিলাশপুর ইউনিয়নের বুধাইর হাট এলাকার চেরাগ আলী বেপারী কান্দি গ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগের নেতা আব্দুল কুদ্দুছ বেপারীর সমর্থক কামাল সরদারের সাথে জাজিরা উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য, বর্তমান চেয়ারম্যান আবু তাহের সরদার সমর্থক জলিল মাদবরের লোকজনের সাথে কথা কাটা কাটি হয়। তখন উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। কথাকাটা কাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষে রুপ নেয়। প্রায় ২ ঘন্টা ব্যাপি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ২ শতাধিক বোমা নিক্ষেপ করে। এতে করে বুধাইরহাট বাজার এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। ঐ বাজারের ব্যাবসায়ীরা সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দোকান পাট বন্ধ রাখে। পুলিশ উভয় গ্রুপকে লাঠি চার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। সংঘর্ষের সময় বোমায় ও ই্ট পাটকেলের আঘাতে মন্তা বেপারী (৪৫), রাব্বি মিয়া (২৫), আব্দুল মান্নান মেম্বার (৫০), সোহান বেপারী (৩২) তোতা খান (৫০), তমিজ খান (৪০), তোতা বেপারী, আলি আজম সরদার সহ ১০ জন মারাতœক আহত হয়। আহতদের জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র , শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

আহতদের মধ্যে মন্তা বিলাশ পুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আবু তাহের সরদার বলেন, স্থানীয় জলিল মাদবরের সমর্থক ও সাবেক চেয়ারম্যনের সমর্থকদের মধ্যে ঝগড়া হওয়ার কথা শুনেছি। আমি ঢাকাতে আছি। এ বিষয়ে আমি তেমন কিছু জানি না।

এ ব্যাপারে জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকার নিউজনাউকে বলেন, বিলাশপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আবু তাহের সরদার ও সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ বেপারীর সমর্মথকদের মধ্যে গতকাল ও আজ সংঘর্ষ হয়েছে। এত বেশ কিছু ককটেল বিস্ফোরন হয়েছে। খবর পেয়ে আমরা গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেছি। এখনও এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(নড়িয়া সার্কেল) এস এম মিজানুর রহমান বলেন, জাজিরার বিলাশপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আবু তাহের সরদার ও সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ বেপারীর সমথকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় ৭০/৮০টি হাত বোমা ব্যবহার করা হয়েছে।ঘটনাস্থলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২১টি তাজা বোমা উদ্ধারসহ ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ১১৬ জনসহ আরো অজ্ঞাত করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
নিউজনাউ/এনএইচএস/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...