অবশেষে মায়ের বুকে ফিরলেন রায়হান কবির

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: মালয়েশিয়া আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার রায়হান কবির অবশেষে তার মায়ের কাছে ফিরেছেন।

শনিবার (২২আগস্ট ) ভোর ৫টায় নারায়ণগঞ্জের বন্দরে শাহী মসজিদ এলাকায় নিজ বাড়িতে ফেরেন রায়হান। তার সাথে ছিলেন তার বাবা শাহ্ আলম। বাড়িতে ফেরার পর সেখানে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

মালয়েশিয়ায় লকডাউন চলাকালে মালয়েশিয়ান সরকারের অভিবাসীদের ওপর বৈষম্যমূলক আচরণের বিষয়ে কাতার ভিত্তিক গণমাধ্যম আল-জাজিরায় কথা বলায় দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী গ্রেপ্তার করে রায়হানকে।

২৪ জুলাই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেফতারের পর দুই দফায় ২৭ দিন রিমান্ডে নিলেও তার বিরুদ্ধে কোনো চার্জ গঠন করতে পারেনি মালয়েশিয়ার পুলিশ। পরে ২১ আগস্ট রাতে তাকে ফেরত পাঠায় মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ। একইসাথে তার উপর আগামী পাঁচ বছরের জন্য দেশটিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

এদিকে এ ছেলের গ্রেপ্তারের বিষয়ে শুনে রায়হান কবিরের মা রাশিদা বেগম অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। কিন্তু ছেলেকে ফিরে পাওয়ার আনন্দ তাকে অনেকটাই মানসিকভাবে সুস্ত করে তুলেছে। তার বাড়িতে ফেরার পর রায়হান কবিরের মা রাশিদা বেগম আপ্লুত হয়ে পড়েন। ছেলেকে ফিরে পেয়ে শুধু একটা কথাই তিনি বলেন, আমি আমার জীবন ফিরে পেয়েছি। এ দেশের সরকার সহ দেশবাসীর সমর্থন ও সহযোগিতার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন তিনি।

বাড়ি ফেরার পর রায়হান কবিরের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমাকে গ্রেপ্তারের পর শারীরিক নির্যাতন না করলেও চরম মানসিক নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে। গ্রেফতার হওয়া থেকে দেশে ফেরা পর্যন্ত একটি পোশাক পরেই ছিলাম । বিমানবন্দরে আসার পর প্রবাসী বাংলাদেশিরা নতুন জামা পড়ার ব্যবস্থা করেন। আমি দেশে ফিরেছি তবে এখনো আমার ইচ্ছা রয়েছে, আমি প্রবাসীদের কল্যাণে কাজ করব।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের শাহী মসজিদ এলাকার বাসিন্দা। তার বাবা শাহ্ আলম ফতুল্লার বিসিক শিল্পনগরীর এবিএফ নিটওয়্যার নামে একটি রপ্তানিমুখী পোশাক কারখানায় চাকরি করেন।

২০১৪ সালে নারায়ণগঞ্জের সরকারি তোলারাম কলেজ থেকে এইচএসসি পাসের পর উচ্চশিক্ষার জন্য মালয়েশিয়া যান রায়হান কবির। সেখানে বিবিএ কোর্স শেষে ভর্তি হন এমবিএতে। লেখাপড়ার খরচ চালাতে কাজ নেন সেখানকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে।
নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...