অধিগ্রহণের খবরে ঘর-বাড়ি নির্মাণের হিড়িক

বরিশাল ব্যুরোঃ বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুরে বরিশাল বিমানবন্দর সংলগ্ন এলাকায় প্রস্তাবিত বিমানবাহিনীর ঘাঁটি স্থাপন প্রকল্পের জন্য ভূমি অধিগ্রহণের খবরে ওই সকল জমিতে ঘর-বাড়ি নির্মাণের হিড়িক লেগেছে।

অধিগ্রহণের প্রস্তাবিত জমিতে জরিপের খবর ছড়িয়ে পড়ায় মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে একাধিক চক্র, যারা ইতি মধ্যে কৃষি ও পরিত্যক্ত জমিতেও আধা কাঁচা-পাকা ঘর ও ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করে দিয়েছেন।

জানা গেছে, জমির অধিক মুনাফার আশায় এ উৎসবে মরিয়া হয়ে উঠেছে একাধিক ভূমি চক্র মহল। তারা রহমতপুর ইউনিয়নের খানপুরা গ্রামে এসব স্থাপনা কোনোভাবে তৈরি করছে।

স্থানীয়রা জানান, গ্রামের একটি বড় জায়গা সরকার বিমানবাহিনীর ঘাঁটির জন্য ভূমি অধিগ্রহণ করবে বলে তারা শুনেছেন। আর তাদের কৃষি ও পরিত্যক্ত জমি অধিগ্রহণে যে ক্ষতিপূরণ মূল্য নির্ধারিত হবে তার চেয়ে বসতভিটা থাকলে বেশি মূল্য পাবেন তারা।

তাই অনেকে নিজে আবার অনেকে বিশেষ মহলের সহায়তায় কোনোভাবে নতুন বাড়িগুলো নির্মাণ করছেন, যার মধ্য দিয়ে বেশ সরকারীভাবে একটি মোটা অংকের ক্ষতিপূরণ আদায়ের নিশ্চিত করা হবে।

তবে স্থানীয় অনেকে বলছেন, কোন জমি অধিগ্রহণের আওতায় আর কোন জমি আওতায় নয়, তা না জেনেই যে যেভাবে পারছে, বাড়ি তৈরির কাজের প্রতিযোগীতা শুরু করে দিয়েছে। এক্ষেত্রে অধিগ্রহণ বিহীন জায়গায় যারা বাড়ি তৈরি করেছেন তারা সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়বেন।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বিমানবাহিনী ঘাঁটির প্রস্তাবিত পরিকল্পনার আওতায় খানপুরা গ্রামের প্রায় এক তৃতীয়াংশ বা প্রায় ১৫৮ একর জমি অধিগ্রহণের প্রয়োজন হবে। জেলা প্রশাসন এম.এম অজিয়র রহমান এ বিষয়ে প্রাথমিক কাজ শুরু করেছে। তারা শিগগিরই খানপুরা গ্রামের ১৫৮ একর জমি অধিগ্রহণের জন্য তাদের প্রস্তাবিত তথ্য ভূমি মন্ত্রণালয়ে পাঠাবে বলেও জানা গেছে।

নিউজনাউ/এফএফ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
Loading...