নিউ ইয়র্কে করোনায় বাংলাদেশি তরুণীর মৃত্যু এবং একটি অনুরোধ

হাসানুজ্জামান সাকীঃ
যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক বাংলাদেশি তরুণী মারা গেছেন। আজ সোমবার সন্ধ্যায় কুইন্স হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ নিয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তিন বাংলাদেশির মৃত্যু হলো। এরআগে দুজনের বয়স ৬০ বছরের বেশি হলেও আজ যিনি মারা গেলেন তার বয়স মাত্র ৩৮ বছর।

আমি কী সাংবাদিক নাকি মানুষ? সাংবাদিকরা নাকি মনুষ্য প্রজাতির মধ্যে পড়ে না! তা না হলে আমি আজ ভারাক্রান্ত কেন? সাংবাদিকদের মধ্যে সাহস ও মানবিক প্রখরতা একটু বেশিই হয়ে থাকে। মৃত নারীর স্বামীর সাথে কথা বলার সময় আমার সেই প্রখরতা ভেঙেছে। আমি অঝোরে কেঁদে উঠেছি।

কোভিড-১৯ এইচআইভি নয়। প্রাণঘাতী করোনা এইডস না হলেও এই ভাইরাস মারাত্মক ছোঁয়াচে হওয়ায় আক্রান্ত ও মৃতের পরিচয় সামাজিক কারণে প্রকাশ করা হচ্ছে না। যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সঠিক সংখ্যা জানানো হলেও তাদের কারও পরিচয় প্রকাশিত নয়।

একটি অনুরোধ। নিউ ইয়র্কে করোনায় বাংলাদেশি তরুণীর মৃত্যুর খবরটি ব্রেক করেছে সময় সংবাদ। কেউ আগে, কেউ একটু পরে সংবাদটি প্রকাশ করবে। এতে বিশেষ ক্রেডিট নেয়ার কিছু নেই। গণমাধ্যমে আমার সহকর্মীদের প্রতি অনুরোধ, আপনারা হয়তো এর মধ্যে মৃত নারীর পরিচয় পেয়ে যাবেন। কিন্তু তার কোনো পরিচয় প্রকাশ করা ঠিক হবে না। মার্কিন গণমাধ্যমও কারও পরিচয় প্রকাশ করছে না। এমনকি করোনা আক্রান্তদের ছবি গণমাধ্যমে দেখানো হলেও ছবি অস্পষ্ট করে দেওয়া হচ্ছে।

আসুন, আমরা রাষ্ট্রীয় নীতিমালা মেনে চলি। রাষ্ট্রের নীতিমালা মেনে চলাও সাংবাদিকতায় অত্যাবশ্যক।

(ফেসবুক টাইমলাইন থেকে নেয়া)
লেখকঃ সাংবাদিক, নিউ ইয়র্ক

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ