করোনাভাইরাসের অবসান হবে কবে?

শহীদুল ইসলাম, যুক্তরাষ্ট্র থেকে,

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন স্টেটে গত ২১ জানুয়ারি চীন ফেরত এক ব্যক্তির শরীরে প্রথম করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। পর্যায়ক্রমে গত প্রায় একমাসে যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি স্টেটসহ রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসি, যুক্তরাষ্ট্রের টেরিটরি গুয়াম, পুয়ের্তো রিকো এবং ইউএস ভার্জিন আইল্যান্ডেও ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস।

এ পর্যন্ত ৯৫ হাজার জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে সনাক্ত হয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, আক্রান্তের সংখ্যা আরো বেশী। সংখ্যার দিক থেকে চীনকে ছাড়িয়ে বিশ্বে আক্রান্ত দেশের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করছে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১8৫১ জন। তাদের মধ্যে নিউইয়র্কে ৩৮৫ জন, ওয়াশিংটন স্টেটে ১৪৯ জন এবং লুইজিয়ানায় ৮৩ জন এবং নিউজার্সিতে ৮১ জন মারা গেছেন।

করোনাভাইরাসের প্রকোপ কমাতে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কসহ ২২টি রাজ্য লকডাউন করা হয়েছে। আক্রান্তদের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে নিউইয়র্কের হাসপাতালগুলো। নিউইয়র্কের গভর্নর এন্ড্রু ক্যুমো জানিয়েছেন, নিউইয়র্কের হাসপাতালগুলোতে এই মুহূর্তে ১ লাখ ৪০ হাজার বেড দরকার। কিন্তু আছে মাত্র ৫৩ হাজার। ভেন্টিলেটরের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। ভেন্টিলরের অভাবে আক্রান্ত অনেক রোগী মারা যাচ্ছে। কিন্তু ট্রাম্প প্রশাসন থেকে প্রত্যাশিত কোনো সহায়তা পাওয়া যাচ্ছে না।

করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ১০ জন বাংলাদেশি মারা গেছেন। আক্রান্ত অনেকেই। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

করোনাভাইরাসের কারণে বহু বাংলাদেশি বেকার হয়ে পড়েছেন। অনেকের ঘরে দেখা দিয়ে খাদ্য সংকট। মাস শেষের পথে। কিন্তু তাদের কারো কাছেই বাসা ভাড়ার অর্থ নেই। সবাই তাকিয়ে আছেন প্রশাসনের দিকে। কিন্তু কবে সরকারি অর্থ সহায়তা পাবেন তা কেউ সঠিকভাবে বলতে পারছেন না। এবারই প্রথম আত্মকর্মসংস্থানের আওতাধীন (Self Employed) ব্যক্তিকে ভাতা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। চার মাস এই ভাতা দেওয়া হবে। আগামী সোমবার থেকে তারা আবেদন করতে পারবেন।

এতকিছুর পরও ভালো নেই বাংলাদেশিরা। কবে এই পরিস্থিতির অবসান হবে, কবে আবার প্রাণ ফিরে পাবে প্রিয় শহর নিউইয়র্ক, সেই প্রতীক্ষায় ঘরে বসে দিন গুণছেন তারা।

শহীদুল ইসলাম, প্রবাসী সাংবাদিক

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...