দেরিতে নাস্তা মানে আপনার নিজেরই ক্ষতি

নিউজনাউ ডেস্ক:

সকালে ঘুম থেকে উঠে অদ্ভুত এক আলস্য কাজ করে আমাদের। এই আলস্যের মাঝেই আবার সারাদিনের বিশাল কাজের চিন্তা। তাই সময় কম হাতে, সকালের আবশ্যই যে কাজটি অর্থাৎ নাস্তা সেরে নেওয়ার সুযোগটাও অনেক সময় মেলে না। তাই না খেয়েই কাজে নেমে পড়তে হয়। আবার অনেকে নাস্তা করেন সকালের অনেক পরে, তখন দুপুর হয় হয়। কিন্তু সকালে ঘুম থেকে উঠেই ফ্রেশ হয়ে ব্রেকফাস্টটা মন দিয়ে সারা উচিত।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, স্বাস্থ্যের খাতিরে কখনই ব্রেকফাস্ট বা নাস্তা এড়িয়ে যাওয়া উচিত নয়। কারণ নাস্তা থেকেই প্রথমে শক্তি সরবরাহ হয় মস্তিষ্কে। রাত দশটায় পর খাবার খেলে এবং তা যদি অত্যধিক ক্যালোরিযুক্ত হয় তাহলে অবশ্যই পরদিন সকালে ভালো করে ব্রেকফাস্ট করুন।

কিন্তু আমাদের দেশের সকলের অভ্যাসই হচ্ছে রাতের খাবারের পর সকালে ঘুম থেকে উঠে বাড়ির সব কাজকর্ম সেরে তারপরই খাওয়া। আর এতেই ক্ষতি হয় সবচেয়ে বেশি।

এবার দেখে নিন নাস্তা দেরিতে করলে কি ক্ষতি হয় আপনার-

১. ব্রেকফাস্ট দেরিতে খাওয়ার ফলে রক্তে ইনসুলিনের পরিমাণ বেড়ে যায়। এতে করে ডায়াবেটিস রোগীরা পড়েন বিপাকে।

২. দেরি করে খাওয়ায় হরমোনের তারতম্য হয়।

৩. খুব অল্প বয়সেই ডায়াবেটিস, কোলেস্টেরলের নানা সমস্যা দেখা দেয়। অপুষ্টির প্রবণতাও বাড়ে।

৪. উচ্চ রক্তচাপ জাঁকিয়ে বসে শরীরে। এ থেকে মস্তিষ্কে দেখা দিতে পারে বিভিন্ন রোগও।

৫. গ্যাসট্রিক বা অ্যাসিডিটি অনিবার্য যদি আপন নিয়মিত দেরিতে নাস্তা করেন।

৬. সকালে বেশিক্ষণ খালিপেটে থাকা মানে আপনার মানসিক অবসাদ বাড়তে থাকা। দেখবেন বেশিক্ষণ না খেয়ে থাকলে মেজাজ খিটমিটে হয়। তাই অবসাদকে প্রশ্রয় দিতে না চাইলে অবশ্যই দেরি না করে নাস্তা করে নেবেন।

চিকিৎসকদের মতে ১৬ ঘণ্টার বেশি কখনই গ্যাপ দেওয়া উচিত নয় খাওয়ায়। তাই ব্রেকফাস্ট কখনই বাদ দেওয়া যাবে না এবং দেরিও করা যাবে না।

মনে রাখবেন, সারাদিন চাঙা এবং ফিট থাকতে নাস্তা আমাদের জন্য খুব জরুরি। আর কখনো অনীহা করে দেরিতে করবেন না নাস্তায়। যখনই সুযোগ পাবেন, অল্প পরিমাণে হলেও নাস্তা করে পানি খেয়ে নিন। আর হ্যাঁ, শুধু চা বা কফি দিয়ে নাস্তার কাজ চালাবেন না। এতে আপনারই ক্ষতি।

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
Loading...