alo
ঢাকা, মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পরিবারের উপার্জনক্ষম ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় মা

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৯:৩১ পিএম

পরিবারের উপার্জনক্ষম ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় মা
alo

 

রাজু কুমার দে, মিরসরাই: ‘আমার প্রতি সপ্তাহে ১৪০০ টাকা কিস্তি রয়েছে। এছাড়া পরিবারের সব খরচ বহণ করতো মেহেদী। এখন আমি কি করবো? কার কাছে যাবো?’ আহাজারি করে কথাগুলো বলছিলেন বুধবার রাতে মিরসরাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত মেহেদি হাসানের মা ওছিবা খাতুন।

ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় এই মা। কিছুতে তাকে বোঝানো যাচ্ছে না মেহেদী আর নেই। মেহেদী উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামের মোঃ হারুনের পুত্র।

স্থানীয়রা জানান, হারুনের দুই পুত্রের মধ্যে ছোট ছিল মেহেদী। বড় ছেলে উপার্জনক্ষম না থাকায় মেহেদী সংসারের সব খরচ বহন করতো। সে বারইয়ারহাট থেকে মস্তাননগর বিশ্বরোড সড়কে সিএনজি অটোরিকশা চালক ছিল। বুধবার রাতে গাড়ি বন্ধ করে বাড়ির সামনে সংগঠিত সড়ক দুর্ঘটনা দেখতে যায় অন্যান্য চালকের মতো। কিন্তু কে জানতো এটি তার শেষ যাত্রা।

পাগলপ্রায় মেহেদীর বাবা মোঃ হারুন বলেন, আমার ঔষধ খরচ থেকে শুরু করে সব কিছু করতো মেহেদী। সব কিছু শেষ হয়ে গেল। এখন কি নিয়ে বাঁচবো আমি?

জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানান, বুধবার রাতে মস্তাননগর এলাকায় সড়ক পারাপারের সময় একটি সিএনজি অটোরিকশাকে ধাক্কায় দেয় মালবাোঝাই একটি কাভার্ডভ্যান, এতে ঘটনাস্থলে ৪ যাত্রী নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মেহেদী হাসান নামে এক সিএনজি অটোরিকশা চালক ছিল।

নিহত চারজনই মিরসরাইয়ের বাসিন্দা। তারা হলেন উত্তর ঘরিয়াইশের সামসুদ্দিনের ছেলে শেখ ফরিদ (৩০) ও তার ভাই সুমন (২৫), পশ্চিম রায়পুরের হারুন মিয়ার ছেলে মেহেদী (২২) , পূর্ব রায়পুরের আবুল কাশেম (৬০)।

আহতরা হলেন, জোরারগঞ্জ হাইওয়ে থানার এএসআই মোস্তফা কামাল, স্থানীয় বাসিন্দা রফিক (২৫), রায়পুরের আব্দুল আউয়াল (৫০), শাহ আলী (২৬) ও নুরুল ইসলাম।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২২

X