ওমানে অবৈধ অভিবাসীদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা

ওমান প্রতিনিধি: ওমানে অবৈধভাবে বসবাসরত বাংলাদেশিদের দেশে ফেরার অপেক্ষার পালা শেষ হয়েছে। দেশটির সরকার অবৈধভাবে ওমানে বসবাসরত বাংলাদেশিদের কোনরকম জেল-জরিমানা ছাড়াই দেশে ফেরার সুযোগ করে দিয়েছে।

যারা ১৫ নভেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে ওমান ছেড়ে নিজ দেশে যাবেন, তাদের ওয়ার্ক পারমিটের সব ফি ও জরিমানা থেকে পুরোপুরি অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এতে খুশি ওমানে বসবাসরত অবৈধ প্রবাসীরা। ওমান প্রবাসীদের বহুল প্রত্যাশিত আউটপাসের বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করেছে ওমানের শ্রম মন্ত্রণালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইটে।

ওমানের শ্রম মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, ওমানে বসবাসরত যে সব অবৈধ প্রবাসী এই বছরের শেষের দিকে ওমান ছাড়ার পরিকল্পনা করেছে, তারা সব ধরনের জরিমানা ছাড়াই তাদের নিজ নিজ দেশে ফেরত যেতে পারবেন।

যেসব প্রবাসীদের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়েছে, তাদের নিজ নিজ দেশের দূতাবাসে যোগাযোগ করে পাসপোর্টসহ অন্যান্য ডকুমেন্ট সংগ্রহ করতে অনুরোধ জানিয়েছে ওমানের শ্রম মন্ত্রণালয়।

কোনরকম জেল-জরিমানা ছাড়া প্রয়োজনীয় তথ্যাদি সংশ্লিষ্ট দূতাবাস অবগত করে শুধুমাত্র কোভিড টেস্ট ও অন্য সব ডকুমেন্ট প্রস্তুতের মাধ্যমে সাধারণ ক্ষমার বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়ে ওমান প্রবাসীদের পক্ষে ওমান সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রাম সমিতির সভাপতি ও এনআরবিসি সিআইপি এসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ পাঁচ বছর পর ওমান সরকার সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছে অবৈধ প্রবাসীদের জন্য। এরইমধ্যে দেশে আসার প্রহর গুনতে গুনতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন অনেক প্রবাসী। ক’দিন আগেও চট্টগ্রামের এক প্রবাসী দেশে ফেরার আকুতিতে বারবার দূতাবাসে গিয়েছেন। তবে লাভ হয়নি। শেষ পর্যন্ত নিজ দেশে ফিরেছেন ঠিকই, তবে লাশ হয়ে।

প্রবাসীদের অভিযোগ, কোন প্রবাসী দেশটিতে অবৈধ হয়ে যাননি বরং সেখানে গিয়ে নিয়োগ কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্ট কোম্পানিগুলো এবং বিভিন্ন রিক্রুটিং এজেন্সির প্রতারণার শিকার হয়ে অবৈধ হন প্রবাসীরা। দূতাবাসে ধর্না দিয়েও অবৈধ হওয়া কিংবা বেতন-ভাতা না পাওয়ার বিষয়ে তেমন কোনো প্রতিকার পান না তারা।

দূতাবাসগুলোতে কর্মরত কর্মকর্তাদের প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে কাজ করা এবং সুখে-দুঃখে পাশে থাকার বৈধ অভিভাবক হিসেবে পাঠানো হলেও তারা সেখানে গিয়ে নবাবজাদা হয়ে যাওয়ার অভিযোগ নতুন নয় উল্লেখ করে প্রবাসীরা দূতাবাসগুলো যেনো আরো বেশি নমনীয় হয় এবং প্রবাসীদের সুখে দুঃখে আন্তরিকতার সাথে এগিয়ে এসে তাদের সমস্যার সমাধান করেন সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে আরো কঠোর নির্দেশনা দেয়ার দাবি জানান।

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...