সকালে উঠে খালিপেটে চা-কফি একেবারেই নয়

নিউজনাউ ডেস্ক: সকালে ঘুম থেকে উঠেই আড়মোড়া ভাঙতে ভাঙতে এক কাপ চা বা কফি না হলে যেন ঘুম ভাঙতেই চায় না। বিছানার মধ্যেই বা ডাইনিং টেবিলে বসে সবার আগে এক কাপ চা বা কফি, তারপর নাস্তা আর বাকি কাজকর্ম। ঘুম তো কাটলো, কিন্তু আপনার শরীরের যে ক্ষতি হচ্ছে, সেটাও বুঝতে হবে অবশ্যই। চা-কফি খাবেন, কিন্তু সেটা অবশ্যই নাস্তার পরে। খালিপেটে চা-কফি শরীরে কি ক্ষতি করতে পারে, জেনে নিন-

মাথাঘোরা এবং বমিভাব

চা-কফিতে থাকে প্রচুর মাত্রায় ক্যাফিন, যা খালি পেট থাকাকালে শরীরে প্রবেশ করলে এমনকিছু পরিবর্তন হয়, যার প্রভাবে হঠাৎ করে মাথাঘোরা বা বমিভাবের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

অ্যাংজাইটির মাত্রা বাড়ে

গবেষণা মতে, সকাল সকাল খালি পেটে চা-কফি পান করলে মস্তিষ্কের ভেতরে এমন কিছু হরমোনের ক্ষরণ বেড়ে যায়, যার প্রভাবে স্ট্রেস এবং অ্যাংজাইটির মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে।

দাঁত দুর্বল হয়

দাঁত না মেজেই চা বা কফি খেলে মুখ গহ্বরের ভেতরে অ্যাসিডের মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে দাঁতের উপরের আবরণ বা এনামেল নষ্ট হয়ে যেতে শুরু করে। আর এমনটা হতে থাকলে এক সময়ে গিয়ে দাঁতের ক্ষয় আর আটকানো যায় না। শুধু তাই নয়, এমন অভ্যাসের কারণে জিনজিভাইটিসসহ একাধিক গাম ডিজিজ হওয়ার আশঙ্কাও বৃদ্ধি পায়।

শরীরে ক্ষতিকর অ্যাসিডের মাত্রা বাড়ে

রাতে ঘুমানোর পর হাজারো ব্যাকটেরিয়া মুখ গহ্বরে জমতে শুরু করে। সেই কারণেই তো সকালে উঠে মুখে এত গন্ধ হয়। এমন পরিস্থিতিতে দাঁত না মেজেই যদি চা বা কফি পান করা হয়, তাহলে এই সব ব্যাকটেরিয়া খাদ্য নালি হয়ে এসে পৌঁছায় পাকস্থলীতে। ফলে সেখানে অ্যাসিডের মাত্রা বাড়ে। তাই গ্যাস-অম্বল বা বদহজমের সমস্যায় দাঁত না মেজে চা বা কফি পান করা উচিত নয়।

দেহে পানির ঘাটতি

চা খেলেই শরীরে পানির মাত্রা কমতে শুরু করে। আর পেট খালি থাকা অবস্থায় এটা আরও মহাবিপদ। এই কারণেই ঘুম ভাঙা মাত্রই চা পান ঠিক নয়। আসলে দীর্ঘ ৮ ঘণ্টা ঘুমানোর কারণে এমনিতেই শরীর পানির ঘাটতি থাকে, তার উপর চা পান করা হয়, তাহলে ডিহাইড্রেশনের আশঙ্কা বাড়ে।

পেটের সংক্রমণ

সকালে খালিপেটে চা বা কফি পানের অভ্যাস থাকলে পেটের ভেতরে, বিশেষত পাকস্থলীতে মারাত্মক প্রদাহ সৃষ্টি হয়, যাতে ইনফেকশনের আশঙ্কা বাড়ে। সেই সঙ্গে পেপটিক আলসারের আশঙ্কা বাড়ে।

দেহে ক্ষতিকর টক্সিনের মাত্রা বাড়ে

সকালে ঘুম থেকে উঠে প্রথমেই এক গ্লাস পানি খাওয়া উচিত, যাতে শরীরে জমে থাকা ক্ষতিকর টক্সিক উপাদান বেরিয়ে যেতে পারে। কিন্তু চা খেলে টক্সিক উপাদানের মাত্রা কমার পরিবর্তে আরও বেড়ে যায়। ফলে লিভার, কিডনি এবং ফুসফুসের মারাত্মক ক্ষতি হয়।

হজম ক্ষমতার অবনতি

খালিপেটে চা খেলে মুখ গহ্বরের খারাপ ব্যাকটেরিয়া শরীরে ঢোকে। ফলে খারাপ জীবাণুর দাপটে পাকস্থলীর ভালো ব্যাকটেরিয়ারা কমতে থাকে। ফলে হজম ক্ষমতা কমে যায়। সেই সঙ্গে অ্যাসিড-অ্যালকেলাইন ব্যালেন্স বিগড়ে পেটের রোগ শরীরেও প্রভাব ফেলে।

শরীরে আয়রনের ঘাটতি

দীর্ঘদিন ধরে বেডটি খেলে শরীরের পক্ষে ঠিকমতো আয়রন শোষণ করা সম্ভব হয় না। ফলে অ্যানিমিয়ার আশঙ্কা বাড়ে।

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
Loading...