স্মরণশক্তি কমে যাচ্ছে, কী করবেন?

নিউজনাউ ডেস্ক: ইদানিং কিছুই মনে থাকছে না, স্মরণশক্তি দিন দিন কমে যাচ্ছে। কাকে কবে কি কথা দিয়েছিলেন, কোনো জরুরি কাজ করার কথা ছিল কিন্তু ভুলেই গেছেন, আগের অনেক কথাই মনে রাখতে পারছেন না- এমনটা হলে বুঝতে হবে আপনার স্মরণশক্তি কমতে বসেছে। এই ভুলে যাওয়া রোগ কিন্তু বাড়তেই থাকবে, যদি না আপনি সতর্ক হন। স্মরণশক্তি ফেরাতে কি করবেন আপনি, দেখে নিন-

রাগ, ক্ষোভ মস্তিস্ককে অকেজো করে দেয়, যা স্মরণশক্তি কমার কারণ। মানসিক চাপের মধ্যে বিষন্নতা সবচেয়ে মস্তিষ্কের ক্ষতি করে। বিষণ্ণতা আপনার মনোযোগশক্তি কমিয়ে দেয়, রক্তে করটিসলের লেভেল বাড়িয়ে দেয়। করটিসেলের লেভেল বাড়লে মস্তিষ্কের কার্যকারিতা কমে যায়। তাই বিষণ্ণতাসহ সব মানসিক চাপ কমিয়ে ফেলুন।

গবেষণা মতে, কিছু সঙ্গীত স্মৃতিশক্তি বাড়াতে উপকারী। যেমন- কোনো ঘটনার সময় আপনি যদি কোনো গান শোনেন তবে আবার সেই গান শোনার সময় সেই ঘটনার আবহের স্মৃতি আপনার মস্তিষ্কে জেগে উঠবে। এছাড়া গান মস্তিস্ককে চনমনে করে তোলে, তাতে স্মরণশক্তি ভালো থাকে।

ব্যায়াম করবেন। ব্যায়াম শুধু শরীর নয়, এটি আপনার মস্তিষ্ককেও সচল রাখে। স্থূলতা এবং অতিরিক্ত ওজন আপনার মস্তিস্কের জন্যও ক্ষতিকর। নিয়মিত ব্যায়াম না করলে কিংবা শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলো সচল না থাকলে রক্তবাহী নালীগুলো চর্বি জমে। ফলে স্বাভাবিক রক্তচলাচল ব্যহত হয়। মস্তিষ্কে রক্তের মাধ্যমে অক্সিজেন সরবারাহ বাধাপ্রাপ্ত হয়। যার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে মস্তিষ্কের কোষগুলোও। তাই নিয়মিত ব্যায়াম করুন।

যে বিষয়গুলো স্মৃতিতে রাখতে চান তা লিখে ফেলার অভ্যাস করুন। এর বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যাও আছে। লেখার সময় মস্তিষ্কে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তপ্রবাহের পরিমান বাড়ে। তাই লিখে রাখুন ডায়রিতে, ইমেইলে বা ব্যক্তিগত ব্লগে।

মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বাড়ানোর জন্য অবশ্যই আপনাকে ভিটামিনযুক্ত পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। তাজা ফলমূল, গাঢ় সবুজ শাকসবজি, মাছ, মাংস, ডিম, দুধ, গমের রুটি প্রভৃতি প্রোটিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করুন। পরিমানমতো বিশুদ্ধ পানি পান করুন। প্রচুর চর্বিযুক্ত খাবার পরিহার করুন। বিশেষ করে বাসি-দূষিত খাবার খাবেন না। ওগুলো স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। আর থেকে বিরত থাকুন।

একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের দৈনিক আট ঘন্টা ঘুমানো প্রয়োজন। একটা চমৎকার ঘুম আপনার মস্তিষ্ককে অধিক কার্যকরী করে তোলে। ঘুমের সময় সাম্প্রতিক সময়ের তথ্যগুলোকে মস্তিষ্কসংরক্ষণ করতে থাকে। তাই নিয়মিত পর্যাপ্ত ঘুমের মাধ্যমে স্মৃতিশক্তি বাড়াতে পারেন।

নিজে যা শিখতে চাচ্ছেন। তা একবার শিখে নিয়ে অন্যকে শেখান। আরজনকে শেখাতে গিয়ে দেখবেন আপনার জানার ঘাটতিগুলো ধরতে পারছেন। আবার চর্চাও হবে আরেকজনকে শেখানোর মাধ্যমে। নতুন কিছু বিষয়ে আপনার কোন চিন্তা আরেকজনের সাথে শেয়ারও করতে পারেন। তাহলে আপনার স্মৃতিতে তা স্থায়ী হবে।

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...