ঘড়ি, চশমা, অলঙ্কারও করতে হবে করোনামুক্ত

নিউজনাউ ডেস্ক:

কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না করোনার তাণ্ডবকে। এ থেকে নিস্তার কবে মিলবে তা আমাদের অজানা। একমাত্র ব্যক্তিগত সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পারলেই একমাত্র কিছুটা নিশ্চিন্তে চলা যায়। হাতমুখ ধুবেন, মুখে মাস্ক তো পরবেন। কিন্তু আপনার নিত্যব্যবহার্য যে জিনিসপত্রগুলো যেমন চশমা, ঘড়ি, মানিব্যাগ, অলঙ্কার- এগুলোকেও কিন্তু নিয়মিত জীবাণুমুক্ত করতে হবে। কারণ এগুলোর মাধমেও ছড়াতে পারে করোনা। তাই এখনই সাবধান।

মোবাইল থেকেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি বেশি। এই ব্যাপারে সচেতনতা জরুরি। কাজ শেষে বাড়ি ফিরে সোজা বাথরুমে গিয়ে পোশাক পরিবর্তন করে হাত-মুখ সাবান দিয়ে পরিষ্কার তো করতে হবেই। তাছাড়া ফোন বন্ধ করে নরম কাপড়ে স্যানিটাইজার বা কীটনাশক লোশন ভিজিয়ে তা দিয়ে ফোন পরিষ্কার করে নিতে হবে। মোবাইল মুছে নিয়ে অল্প সময় রোদে রেখে আসতে পারেন।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, বাইরে থেকে বাড়িতে ফিরে দুটি হাত খুব ভালোভাবে ধুয়ে নেওয়ার পাশাপাশি চশমা, মোবাইল ফোনও খুব ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে পানি ও লোশন দিয়ে। একইভাবে স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে চশমার খাপ, মানিব্যাগ, বেল্টও। শুকনো কাপড়ে স্যানিটাইজার লাগিয়ে তা দিয়ে চশমার ডাঁটি, ফ্রেম, চশমার খাপ, মোবাইল ফোন, তার কভার, মানিব্যাগ, বেল্ট খুব ভালোভাবে মুছে নিতে হবে। না হলে এগুলো দিয়ে সংক্রমণ বাড়তে পারে।

চিকিৎসকদের মতে, যেগুলো ধাতব অলঙ্কার সেগুলোকে খুব ভালোভাবে ধুয়া ও মুছে নেওয়ার পর কিছুক্ষণ সেগুলোকে রোদে রেখে দিলে ভালো হয়। চশমাও হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে মুচে নিতে পারেন।  কাচ ও ফ্রেম ভালোভাবে ধুয়েও নিতে পারেন। চশমা পরিষ্কারের জন্য যে বিশেষ লোশন আছে, তা দিয়ে খুব ভালোভাবে মুছে নিতে হবে চশমার দু’টি কাচ ও ফ্রেম।

হাতের আংটি, কানের দুল, বালা, গলার হার বা চেন, নাকছাবি, নথ, এইসবের ব্যবহার নিয়েও আমাদের খুব সাবধান হতে হবে। এমনটাই বলছেন চিকিৎসকেরা। তাদের মতে, এসময় অলঙ্কার না পরাই সবচেয়ে ভালো। তবে যদি পরতেই হয়, বাইরে থেকে এলে দু’টি হাত খুব ভালোভাবে ধোয়ার সঙ্গে সঙ্গে হাতের আংটি, কানের দুল, গলার হার বা চেন, নাকছাবি, নথও খুব ভালোভাবে ধুয়ে ও মুছে নিতে হবে। তার আগে ব্রাশ দিয়ে অলঙ্কারের খাঁজগুলো পরিষ্কার করে নিতে হবে।

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...