গড়ে তুলুন বইপড়ার সুঅভ্যাস

নিউজনাউ ডেস্ক: বইয়ের চেয়ে কাছের বন্ধু নাকি কিছু নেই, এ কথা চিরন্তন সত্য। বইয়ের মাঝে ডুব দিলে আশেপাশের দুনিয়ায় আর কোনো দৈন্যতা আমাদের বিড়ম্বনায় ফেলতে পারে না। কিন্তু দিন দিন বইপড়ার অভ্যাস আমাদের মধ্যে থেকে হারিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু বইপড়াকে শখ থেকে অনায়াসেই অভ্যাসে পরিণত করতে পারেন। তাই আপনাদের জন্য থাকছে সহজ কিছু পন্থা-

১. প্রথমে সময় বের করুন। সারাদিনের ব্যস্ততার মধ্যে থেকেও একটি একটি নির্দিষ্ট সময় খুঁজে বের করুন। প্রতিদিন একটা নির্দিষ্ট সময় শুধু বই পড়ার জন্য রাখুন, দিনে একই সময়ে বই পড়ুন। এতে আস্তে আস্তে আপনার বই পড়ার অভ্যাস হয়ে যাবে।

২. প্রথমেই বড় গল্প, উপন্যাস পড়তে ভালো লাগবে না। তাই আগে মজার বইগুলো পড়ুন। প্রযুক্তি ভালোবাসলে সাইন্স ফিকশন বই পড়ুন, রহস্যরোমাঞ্চ পছন্দ করলে গোয়েন্দা কাহিনী, থ্রিলার পড়বেন। মোট কথা, ভালোলাগার জন্য পড়ুন। কমিক্স বই পড়তে পারেন। এতে বই পড়ার আগ্রহ আরও বেড়ে যাবে। শিশুতোষ বইও পড়তে পারেন। রোমান্টিক বইও পড়ুন মাঝেমাঝে।

৩. একটি লক্ষ্য নিয়ে পড়া শুরু করুন। আজ বইয়ের কমপক্ষে কত পৃষ্ঠা পড়তে পারবেন, সেটা আগে থেকেই ভেবে নিন। নিজের কাছেই একটা সময় বেধে নিন যে ন্যূনতম এতদিনের ভেতরে এই বইটা শেষ করে ফেলবো- এমন একটা লক্ষ্য রাখুন। এতে বইপড়া শখ থেকে অভ্যাসে পরিণত হবে।

৪. কাজের ফাকে ফাকে বইপড়ার অভ্যাস করুন। এই ধরুন লম্বা জার্নিতে যাচ্ছেন, বই নিয়ে নিন সাথে। আবার অফিস বা ক্লাসে, রাস্তার বিশাল জ্যামে সাথে বই রাখতে পারেন। এতে একাকিত্ব দূর হবে, বই পড়ার প্রতি আকর্ষণ বাড়বে। দুশ্চিন্তা কমাতেও হালকা কোনো বই, ম্যাগাজিন পড়ে নিতে পারেন।

৫. অনেকে ভাবেন কি বই পড়বো, কোথায় এতো বই পাবো, বই কিনতে হবে কিনা, বই কিনলে পড়বো কখন- এগুলো ভাবতে ভাবতেই বইপড়া থেকে পিছিয়ে আসি আমরা। আশেপাশে যারা বই পড়ে নিয়মিত, তাদের সাথেও কথা বলে নিতে পারেন। অনলাইনে বই কিনতে পারেন, আবার ই-বুকও পড়তে পারেন।

৬. বইপড়া অভ্যাসে ভাটা পড়ার অন্যতম কারণ হলো সামাজিক মাধ্যমে বেশি সময় কাটানো। আমাদের ব্যস্ত জীবনে যতটুকু সময় বাচে, আমরা কাটিয়ে দিই সামাজিক মাধ্যমে। এটা না করে বই হাতে নেওয়ার চেষ্টা করুন। দেখবেন সময়টা ভালো কাটবে।

নিউজনাউ/এসএইচ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
Loading...