alo
ঢাকা, বুধবার, ফেব্রুয়ারী ৮, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৬ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে ট্রালার-জাহাজডুবি: ৩ লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ আরও ৫

প্রকাশিত: ১৪ অক্টোবর, ২০২২, ০১:৩২ পিএম

চট্টগ্রামে ট্রালার-জাহাজডুবি: ৩ লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ আরও ৫
alo

 

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামে দুটি দুর্ঘটনায় ফিশিং ট্রলার ও লাইটারেজ জাহাজডুবিতে আরও ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে কোস্টগার্ড। শুক্রবার (১৪ অক্টোবর) সকালে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

কোস্টগার্ড পূর্বজোনের স্টাফ অফিসার (অপারেশান্স) লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এম আশফাক বিন ইদ্রিস নিউজনাউকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে উদ্ধার হওয়া ৩ মরদেহের পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেননি তিনি।

দুর্ঘটনায় মাছ ধরার ট্রলারের ৭ জন ও জাহাজের ৬ জনসহ মোট ১৩ নাবিক নিখোঁজ ছিল। এর মধ্যে, গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) ট্রলারের পাঁচ নাবিকের লাশ উদ্ধার হয়। ট্রলারের এখনও নিখোঁজ আছেন ২ জন। ‘উদ্ধার হওয়া মরদেহগুলোর মধ্যে চারজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন, এফবি মাগফেরাত জাহাজের ক্যাপ্টেন ফারুক বিন আব্দুল্লাহ, প্রকৌশলী মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, প্রধান কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম, ডক কর্মচারী রহমত আলী। বেলা সাড়ে তিনটায় সর্বশেষ একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহটি ফিশিং মাস্টার জহিরুল ইসলামের বলে দাবি করেছেন তার পরিবার। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে মরদেহের পরিচয় এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।   

বুধবার থেকে বৃহস্পতিবার সাড়ে তিনটা পর্যন্ত কর্ণফুলী নদীর শাহ আমানত সেতু ও ১৫ নম্বর ঘাট এলাকা থেকে এই পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয় বলে জানান সদরঘাট নৌ-থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ একরাম উল্লাহ।

কোস্টগার্ডের পূর্ব জোনের কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট আল আমিন বলেন, ‘নিখোঁজ ৬ জনের মধ্যে ৩ জনের লাশ আজ (শুক্রবার) পেয়েছি। ঘটনাস্থলের আশপাশেই লাশগুলো ভেসে আসে। সকাল সাড়ে ৭টা থেকে সাড়ে ১১টার মধ্যে লাশ তিনটি উদ্ধার করি। তবে চেহারা বিকৃত হয়ে যাওয়ায় পরিচয় এখনও নিশ্চিত করা যায়নি। নৌ পুলিশের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। তারা পরিবারের সদস্যদের মাধ্যমে লাশ শনাক্ত করবেন।’

নিখোঁজ আরও ৩ জনকে উদ্ধারে সাগরে অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানিয়েছেন কোস্টগার্ডের এই কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত মঙ্গলবার (১১ অক্টোবর) রাত দেড়টার দিকে কর্ণফুলী উপজেলার ইছানগর এলাকার সি-রিসোর্স ঘাট বরাবর সংলগ্ন বয়া এলাকায় র‌্যাঙ্কন কোম্পানির মালিকানাধীন ‘এমবি মাগফেরাত’ নামে একটি মাছ ধরার ট্রলার নদীতে ডুবে যায়। ট্রলারটি মেরামতের জন্য ডকে তোলার সময় প্রপেলার (পাখা) খুলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশে থাকা বয়া এবং আরও কয়েকটি ফিশিং ট্রলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ডুবে গিয়েছিল।

এর পর বুধবার (১২ অক্টোবর) নগরের পতেঙ্গার কাটগড়ে চরপাড়া ঘাটের অদূরে চট্টগ্রাম বন্দরের বর্হিনোঙ্গরে বঙ্গোপসাগরে পাথরবোঝাই লাইটারেজ জাহাজ ‘এমভি সুলতান সানজানা’ ডুবে যায়।

নিউজনাউ/পিপিএন/২০২২

X