alo
ঢাকা, বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সাবেক সেনাপ্রধান হারুনের জামিন বহাল

প্রকাশিত: ০১ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ০৪:৪৮ পিএম

সাবেক সেনাপ্রধান হারুনের জামিন বহাল
alo


নিউজনাউ ডেস্ক: অর্থ পাচারের মামলায় চার বছরের সাজাপ্রাপ্ত ডেসটিনি গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং সাবেক সেনাপ্রধান হারুন-অর-রশিদের জামিন আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালত।

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের চেম্বার জজ আদালত এ আদেশ দেন।

আদালতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। আর ডেসটিনির চেয়ারম্যানের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী অ্যাডভোকেট রবিউল আলম বুদু।

এর আগে মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) হারুন-অর-রশিদকে ছয় মাসের জামিন দেন বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ।

এই জামিন স্থগিত চেয়ে বুধবার (৩১ আগস্ট) আপিল বিভাগে আবেদন করে দুদক। তবে জামিন বহাল রাখেন চেম্বার জজ আদালত।

অর্থ আত্মসাতের মামলায় চলতি বছরের (২০২২ সাল) ১২ মে রায় দিয়েছিলেন বিচারিক আদালত। এতে ডেসটিনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ রফিকুল আমীনসহ ৪৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও তাদের ২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়।

এর মধ্যে হারুন-অর-রশীদকে চার বছরের কারাদণ্ড ও সাড়ে ৩ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়। অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ রায়ের বিরুদ্ধে ও জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আপিল করেন হারুন-অর-রশীদ।

এছাড়া রফিকুল আমিনকে ১২ বছর কারাদণ্ড এবং ২শ কোটি টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৩ বছরের সাজা দেওয়া হয়। বাকিদের বিভিন্ন মেয়াদে দেওয়া হয় সাজা। ৪৬ আসামির মধ্যে ৩৯ জন পলাতক রয়েছেন।

২০১২ সালের ৩১ জুলাই দুদকের উপ-পরিচালক মো. মোজাহার আলী সরদার ও সহকারী পরিচালক মো. তৌফিকুল ইসলাম রাজধানীর কলাবাগান থানায় দুটি মামলা করেন। ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি এবং ডেসটিনি ট্রি প্লান্টেশন প্রজেক্টের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে মামলা হয়।

তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ৫ মে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। এর মধ্যে ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির মামলায় ৪৬ জন এবং ডেসটিনি ট্রি প্লানটেশন লিমিটেডে দুর্নীতির মামলার ১৯ জনকে আসামি করা হয়। হারুন-অর-রশিদ ও রফিকুল আমিন দুই মামলাতেই আসামি।

নিউজনাউ/আরবি/২০২২

X