সীমিত আকারে পোশাক কারখানা চালু

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দেশে করোনাভাইরাসের ঝুঁকির মধ্যেই রোববার (২৬ এপ্রিল) থেকে সী‌মিত আকা‌রে চালু হ‌য়ে‌ছে পোশাক কারখানা। তবে ধাপে ধা‌পে সব কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত নি‌য়ে‌ছে পোশাক মালিকদের বড় দু‌টি সংগঠন বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) এবং বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ)।

এর আ‌গে মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সরকারি ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে দে‌শের সব পোশাক কারখানা ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা ক‌রে বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ।

জানা গেছে, বিশ্বব্যা‌পী মহামা‌রির ম‌ধ্যেও অ‌নেক পোশাক কারখানার ক্রয়া‌দেশ বহাল র‌য়ে‌ছে। এসব অর্ডার যেন বা‌তিল না হয় তাই কারখানা খুলে দেয়ার জন্য চাপ দি‌চ্ছে পোশাক কারখানার মা‌লিকরা। বিষয়‌টি বি‌বেচনায় সরকা‌রের অনুম‌তি‌তে প্রথ‌মে সী‌মিত আকা‌রে চালু থাকবে পোশাক কারখানা। প‌রে ধা‌পে ধা‌পে সব কারখানা খুলে দেয়া হবে।

যেসব কারখানা চালু হবে সেখানে সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ শ্রমিকের উপস্থিতির লক্ষ্য ধরেছে বিজিএমইএ। কেবল নিটিং, ডায়িং ও স্যাম্পল সেকশন চালু করার পরামর্শ দিয়েছে বিকেএমইএ। তাতেও অন্তত ৩০ শতাংশ শ্রমিকের উপস্থিতির প্রয়োজন হবে।

এরআগে শনিবার (২৫ এপ্রিল) দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান এফবিসিসিআই আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বিজিএমইএ সভাপতি ড. রুবানা হক বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোতে যদি অর্ডার চলে যায় তাহলে তা ফেরত আনা কঠিন হবে। তাই সীমিত শ্রমিক নিয়ে সীমিত আকারে কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত নেয়া জরুরি।

বিষয়টি বিবেচনা নিয়ে ধাপে ধাপে পোশাক কারখানা চালু বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন শীর্ষ ব্যবসায়ী নেতারা। এরপর ২৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় পোশাক কারখানা খোলার বিষয়টি অবহিত করে বিজিএমইএ শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিবকে চিঠি পাঠায়। একই সিদ্ধান্ত নেয় পোশাক শিল্প মালিকদের অপর সংগঠন বিকেএমইএ। এরপর শ্রম মন্ত্রণালয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে কারখানা চালু করার জন্য একটি নির্দেশনা জারি করে।

নিউজনাউ/ এম এইচ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...