শ্রমিকদের বেতন দিতে না পারায় কাঁদলেন গার্মেন্টস মালিক

0 73

নিউজনাউ ডেস্ক: শ্রমিকদের টাকা দিতে না পেরে কান্নাকাটি করছেন এক গার্মেন্ট মালিক। গোপনে কাঁদলেও এখন ঘটনাটি খবরের শিরোনাম হয়েছে। ক্রেতাদের কাছে পাওনা টাকা না পাওয়ায় আসন্ন ঈদে গার্মেন্টসের দুই হাজার শ্রমিককে বেতন দিতে না পারায় তার এই হতাশা, হাহাকার। লণ্ডনভিত্তিক ওয়েবসাই অ্যাপারেল ইনসাইডার ডটকমে ১৯ মে খবরটি প্রথম প্রকাশিত হয়।

তিনি চট্টগ্রামের কর্ণফুলী ইপিজেড এলাকায় ডেনিম এক্সপার্ট লিমিটেডে নামে কারখানার মালিক মোস্তাফিজ উদ্দিন। তিনি বলেন, আমার বিদেশি ক্রেতারা ফেব্রুয়ারি থেকেই টাকা দেয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এ যাবৎ পর্যন্ত অনেক করে চালিয়েছি। এখন আর পারছি না। শ্রমিকদের বেতন দেয়ার মতো কোন টাকা আমার কাছে নেই।

অথচ একসময় শ্রমিক কর্মচারীদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা, ন্যায্য মজুরি ও সুরক্ষা দেয়ার জন্য বিদেশি ক্রেতাদের নজর কেড়েছিলেন তিনি। চট্টগ্রামের বিভিন্ন ট্রেড শো ও সম্মেলন করে খ্যাতি পেয়েছিলেন ‘ডেনিম মোস্তাফি’ নামে।

২০০৯ সালে চট্টগ্রামে কারখানা দেন মোস্তাফিজ উদ্দিন। বিভিন্ন ট্রেড শো এবং ব্যবসায়ী সম্মেলন করে তিনি পরিচিতি পেয়েছেন ‘ডেনিম মোস্তাফিজ’ নামে। শ্রমিক-কর্মচারীদের সুরক্ষা, ন্যায্য মজুরি ও বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার কারণে বিদেশি ক্রেতাদের নজরে আসেন। তাকে নিয়ে দেশের বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমেও ফিচার লিখা হয়। ২০১৮ সালে ফ্যাশন সম্মেলনে যুগোপযোগী প্রস্তাব দিয়ে প্রশংসিত হয়েছিলেন যা বাংলাদেশের পোশাক খাতের উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে।

ফেসবুকে তিনি বলেন, পশ্চিমা ক্রেতারা টাকা পরিশোধ না করায় আমার দায়িত্ব থাকা সত্ত্বেও শ্রমিকদের বেতন, বোনাস দিতে পারছি না, বাড়ি পাঠাতে পারছি না।

তিনি তার ফেসবুকে লিখেন, ‘বোনাস দিয়ে শ্রমিকদের বাড়ি পাঠানো আমার বড় দায়িত্ব ছিলো। কিন্তু এই সময়ে এটা আমার জন্য অনেক কঠিন কাজ ছিলো। কারণ পশ্চিমা ক্রেতারা টাকা পরিশোধ করেননি। গ্লোবাল ব্র্যান্ডস গ্রুপ (জিবিজি) তারা টাকা দেয়নি। আর্কেডিয়া গ্রুপ তাদের অর্ডার বাতিল করেছে।’

তিনি বলেন, বন্ধু ও আত্মীয় স্বজনের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করে শ্রমিকদের বোনাস দিয়েছি কিন্তু তা পর্যাপ্ত নয়।

নিউজনাউ/এসএ/২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...