কুরবানি উপলক্ষে মাংস ব্যবসায়ীদের ৫ দা‌বি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ঈদুল আজহায় কুরবানির জন্য ভারত ও মিয়ানমার থে‌কে গরু ও মহিষের মাংস আমদানি নিষিদ্ধ, কুরবানির কাঁচা চামড়ার মূল্য নির্ধারণসহ সরকারের কাছে পাঁচ দফা দা‌বি জানিয়ে‌ছেন মাংস ব্যবসায়ীরা।

শনিবার (১১ জুলাই) সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দা‌বি জানা‌নো হয়। বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতি ও ঢাকা মেট্রোপলিটন মাংস ব্যবসায়ী সমিতির যৌথ উদ্যোগে এ সংবাদ সম্মেলন ক‌রা হয়।

মাংস ব্যবসায়ীদের দা‌বিগু‌লো হ‌লো- ভারত ও মিয়ানমারের গরু, মহিষ, মাংস আমদানি নিষিদ্ধ করা। চামড়া শিল্পের সিইটিপি, রফতা‌নির জন্য ছাড়পত্র দেয়া। গাবতলী গরুর হাটের অতিরিক্ত খাজনা আদায় বন্ধ করা। মাংস শ্রমিকদের প্রশিক্ষণ এবং কুররবানির কাঁচা চামড়ার মূল্য নির্ধারণ করা।

সংবাদ সম্মেলনে জানা‌নো হয়, ভারত ও মিয়ানমার থেকে গরু, মহিষ ও মাংস আমদানি বন্ধ করতে হবে। ভারত-মিয়ানমার গরু পাচার করে প্রতি বছর ৬০ হাজার কোটি টাকা নিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের কৃষকদের কৃষিঋণের মাধ্যমে ১০-২০ হাজার কোটি টাকা দিয়ে চরাঞ্চলগুলো পশুপালনের আওতায় আনতে পারলে মাংস ও কুররবানি পশুর চাহিদা পূরণ করেও বিদেশে মাংস, হাড়, শিং, নাড়ী-ভুড়ি, চামড়া রফতা‌নি করে ৬০ থেকে ৮০ হাজার কোটি টাকা আয় করা সম্ভব।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানা‌নো হয়, মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মাধ্যমে মাংস শ্রমিকদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে। শ্রমিকদের প্রশিক্ষণ হাতেকলমে দিতে পারলে রফতানিযোগ্য শত শত কোটি টাকার পশুর বর্জ্য রক্ষা করা যাবে। জবাইখানাভিত্তিক দীর্ঘমেয়াদি প্রশিক্ষণশালা গঠন করতে হবে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়েরর মাধ্যমে কুররবানির কাঁচা চামড়ার মূল্য নির্ধারণ করতে হবে।

নিউজনাউ/ এম এইচ/ ২০২০

Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
এছাড়া, আরও পড়ুনঃ
Loading...